নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠক প্রমাণ করেছে আমেরিকা একা ও অসহায় রুহানিইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি বলেছেন, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকে আমেরিকার একাকিত্ব ও অসহায়ত্ব প্রমাণিত হয়েছে; কারণ এ বৈঠকে সব দেশ ইরানের পরমাণু সমঝোতার প্রতি সমর্থন জানিয়েছে এবং প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে এ সমঝোতার ব্যাপারে মার্কিন পদক্ষেপকে অন্যায় বলে অভিহিত করেছে।

তিনি বুধবার নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের বার্ষিক অধিবেশনের অবকাশে এক সংবাদ সম্মেলনে এ মন্তব্য করেন। রুহানি বলেন, গত এক বছরে বিশ্বের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা ছিল জাতিসংঘের পক্ষ থেকে স্বীকৃত ইরানের পরমাণু সমঝোতা থেকে আমেরিকার বেরিয়ে যাওয়া। কিন্তু এবারের বার্ষিক অধিবেশনে বিশ্বের প্রায় সব দেশ এই সমঝোতার পক্ষে কথা বলেছে।

আমেরিকার বেরিয়ে যাওয়া সত্ত্বেও ইরান এ সমঝোতায় টিকে থেকে দূরদর্শিতার পরিচয় দিয়েছে বলেও জানান প্রেসিডেন্ট রুহানি।

ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচি সম্পর্কে এক প্রশ্নের উত্তরে রুহানি বলেন, পরমাণু সমঝোতায় ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচি নামের কোনো কিছুর অস্তিত্ব নেই এবং কেউ প্রতিশ্রুতি লঙ্ঘন করতে চাইলে তার অজুহাতের অভাব হয় না।

সংবাদ সম্মেলনে ফিলিস্তিন প্রসঙ্গেও কথা বলেন প্রেসিডেন্ট রুহানি। তিনি বলেন, ফিলিস্তিন একটি জটিল সংকট এবং মধ্যপ্রাচ্যের বহু সমস্যা ফিলিস্তিন সংকটের কারণে সৃষ্টি হয়েছে। তিনি বলেন, সাত দশক আগে যদি ইহুদিবাদীরা ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড জবরদখল করে অবৈধ রাষ্ট্র ইসরাইলের জন্ম না দিত তাহলে মধ্যপ্রাচ্য পরিস্থিতি আজ সম্পূর্ণ ভিন্নরকম হতো। ইহুদিবাদীদের কবল থেকে ফিলিস্তিন স্বাধীন করার আন্দোলনে ইরানের সমর্থন ছিল, আছে এবং থাকবে বলেও দৃঢ় প্রত্যয় জানান প্রেসিডেন্ট রুহানি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য