আজিজুল ইসলাম বারী, লালমনিরহাট প্রতিনিধিঃ লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা আলিমুদ্দিন সরকারী কলেজের শরিফুল ইসলাম খন্দকার মনি নামে এক প্রভাষকের বিরুদ্ধে অষ্টম শ্রেনীর এক ছাত্রীকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে বুধবার(২৬ সেপ্টেম্বর) বিকালে হাতীবান্ধা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। প্রভাষক শরিফুল ইসলাম মনি ওই উপজেলার ডাউয়াবাড়ি ইউনিয়নের প্রান্নাথ পাটিকাপাড়া এলাকার আব্দুল জব্বার খন্দকারের পুত্র ও ওই কলেজের অনার্স শাখার হিসাব বিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক বলে জানা গেছে। ভুক্তভোগী ওই ছাত্রীর বাড়ি প্রভাষক মনির বাড়ির পাশে। এ ছাড়া ওই ছাত্রীর ছবি ফেসবুকে ছড়িয়ে দেয়ার অপরাধে তথ্য প্রযুক্তি আইনে আরও একটি মামলা দায়েরের অনুমতি চেয়ে পুলিশের হেড কোয়ার্টারে আবেদন করেছে হাতীবান্ধা থানা পুলিশ।

ওই ছাত্রীর বাবা বলেন, প্রভাষক শরিফুল ইসলাম খন্দকার মনি বেশ কিছুদিন ধরে আমার মেয়েকে প্রাইভেট পড়াতেন। এই সুযোগে বিভিন্ন সময় কু-প্রস্তাবের পাশাপাশি বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে আমার মেয়েকে যৌন নিপীড়ন করে আসছেন। আমার মেয়ে প্রথমে বিষয়টি আমার স্ত্রীকে জানায়। পরে আমি স্ত্রীর কাছে পুরো বিষয়টি জানতে পাই। ওই প্রভাষকের সাথে আমার মেয়ের একটি ছবি ফেইজবুকে এসেছে। আমি বিষয়টি নিয়ে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করেছি।

এ বিষয়ে প্রভাষক শরিফুল ইসলাম খন্দকার মনি যৌন নিপীড়নের অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ওই মেয়ে আমার প্রাইভেট ছাত্রী হলেও সম্পর্কে ভাতিজি হয়। ২ বছর আগের একটি ছবি ইডিটিং করে ফেইজবুকে দেয়া হয়েছে।

হাতীবান্ধা আলিমুদ্দিন সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ সরওয়ার হায়াত খান জানান, বিষয়টি লোক মুখে শুনেছি। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

হাতীবান্ধা থানার ওসি ওমর ফারুক জানান, শরিফুল ইসলাম খন্দকার মনি নামে এক প্রভাষকের বিরুদ্ধে ছাত্রীকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগে মামলা দায়ের হয়েছে। পাশাপাশি ওই ছাত্রীর ছবি ফেসবুকে ছড়িয়ে দেয়ার অপরাধে তথ্য প্রযুক্তি আইনে আরও একটি মামলা দায়েরের অনুমতি চেয়ে পুলিশের হেড কোয়ার্টারে আবেদন করা হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য