আধার কার্ড সাংবিধানিক ঘোষণা করলো ভারতের সুপ্রিম কোর্টভারতের বিতর্কিত বায়োমেট্রিক পরিচয়পত্রের পরিকল্পনাকে বৈধতা দিয়েছে দেশটির সুপ্রিম কোর্ট। এক রায়ে আদালত জানিয়েছে, আধার কার্ড পরিকল্পনা ‘সাংবিধানিক’। এতে গোপনীয়তার অধিকার ক্ষুণ্ণ হয় না। উল্লেখ্য, বিশ্বের সবচেয়ে বড় বায়োমেট্রিক পরিচয়পত্রের পরিকল্পনা এটি।

এদিকে, আধার কার্ডের বৈধতা বজায় রাখলেও সুপ্রিম কোর্টের রায়ে আধারের ব্যবহারে সীমিত করে দেওয়া হয়েছে। রায় অনুসারে, সরকারি ভর্তুকিসহ একাধিক বিষয়ে আধার বাধ্য থাকলেও, ব্যাংক অ্যাকাউন্ট বা মোবাইল সিম-এর ক্ষেত্রে আধার বাধ্যতামূলক নয়।

রায়ে আরো বলা হয়, স্কুলে ভর্তির ক্ষেত্রে আধার কার্ড বাধ্যতামূলক নয়। এমনকি, বেসরকারি সংস্থা, ব্যাঙ্ক বা ফোন কোম্পানিগুলি তাদের গ্রাহকের কাছে আধার লিঙ্ক চাইতে পারবে না।

ইতিমধ্যে আধার কার্ড তৈরি করেছেন ১০০ কোটির বেশি মানুষ। এদের প্রত্যেকে পেয়েছে ১২ সংখ্যার একটি সনাক্তকরণ নাম্বার।

উল্লেখ্য, ভারত সরকারের আধার পরিকল্পনার বিরুদ্ধে আদালতে পিটিশন করেন প্রায় ৩০ জন ব্যক্তি। তারা যুক্তি দেখান, এতে নাগরিকের গোপনীয়তার অধিকার লঙ্ঘিত হয়। আধার গঠন করা হয়েছে বায়োমেট্রিক পদ্ধতির ভিত্তিতে।

বুড়ো আঙুলের ছাপ ও আইরিশ স্ক্যানের মাধ্যমে। যা কখনওই বাধ্যতামূলক হতে পারে না।আধার কার্ডের যে বিশাল তথ্যপঞ্জি রয়েছে, তা নিয়ে পুনরায় ভাবনাচিন্তা করা যায় বলে জানিয়েছিলেন পিটিশনকারীরা।

কিন্তু রায় দেওয়ার সময় সুপ্রিম কোর্টের পাঁচ সদস্যের বেঞ্চ জানায়, দেশের প্রান্তবর্তী মানুষকে আধার কার্ড নিজস্ব পরিচয় গঠনে সাহায্য করবে এবং সমাজে সামগ্রিকভাবে তাদের সম্মানেরও অগ্রগতি হবে বলেও জানাল সুপ্রিম কোর্ট। -বিবিসি, এনডিটিভি

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য