সুদানে প্রাণঘাতি ভূমিধসসুদানের দক্ষিণ দারফুরের একটি এলাকায় চলতি মাসের শুরুতে ভূমিধসে ১৬ জনের মৃত্যুর পর সেখানে জরুরি সহায়তা দিতে যৌথ কার্যক্রম শুরু করেছে জাতিসংঘ ও আফ্রিকান ইউনিয়ন।

সেপ্টেম্বরের শুরুর দিকে দারফুরের পূর্ব জেবেল মারা এলাকার ওয়াদি তুলিবা ও তাগুলেই গ্রামে এ ভূমিধসের ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

ভূমিধসে গ্রাম দুটির ৭৬টি পরিবার বাস্তুচ্যুত হয়েছে বলে জানিয়েছে ইউনাইটেড নেশন-আফ্রিকান ইউনিয়ন মিশন ইন দারফুর (ইউএনএএমআইডি) ।

সোমবার এক বিবৃতিতে ইউএনএএমআইডি বলেছে, “ক্ষতিগ্রস্ত জনগোষ্ঠীর মধ্যে অনেকে আহত হয়েছে, কেউ কেউ অসুস্থ হয়ে পড়েছে, ঘরবাড়ি ধ্বংসের পাশাপাশি গবাদিপশুর প্রাণহানি হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।”

রয়টার্স বলছে, ইউএনএএমআইডির এ বিবৃতিতেই ভূমিধসে ১৬ জন নিহতের বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া গেছে।

ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য পরিচালিত জরুরি সহায়তা কার্যক্রমে সুদানের সরকারের পাশাপাশি বিদ্রোহী নেতা আবদুল ওয়াহিদের সুদান লিবারেশন আর্মির যোদ্ধারাও সাহায্য করছে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ-আফ্রিকান ইউনিয়নের এ মিশন।

সরকারি বাহিনী ও সুদান লিবারেশন আর্মির যোদ্ধারা দীর্ঘদিন ধরে দক্ষিণ দারফুরের এই এলাকাটির নিয়ন্ত্রণ নিতে একে অপরের বিরুদ্ধে লড়াই করলেও সাম্প্রতিক মাসগুলোতে তাদের মধ্যে বিচ্ছিন্ন দু-একটি সংঘর্ষ ছাড়া বড় ধরনের লড়াইয়ের খবর পাওয়া যায়নি।

গত তিন বছর ধরে দারফুরে একতরফা যুদ্ধবিরতি চলায় সংঘাতের পরিমাণও অনেকটা হ্রাস পেয়েছে।

সরকার সমর্থিত বাহিনী ও মিলিশিয়ার সঙ্গে বিদ্রোহী গোষ্ঠীগুলোর লড়াইয়ে পশ্চিম সুদানের এ এলাকাটির হাজার হাজার বাসিন্দা নিহত এবং প্রায় ২০ লাখ লোক উদ্বাস্তুতে পরিণত হয়েছে বলেও ভাষ্য ইউএনএএমআইডির।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য