ঠাকুরগাঁওয়ে শহীদের স্মরণে স্মৃতি সৌধের দৃষ্টি নন্দন কাজের উদ্বোধনমাসুদ রানা পলক, ঠাকুরগাঁও : ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে ৭১’র শহীদের স্মরণে স্মৃতি সৌধ নির্মাণের অসমাপ্ত কাজ পুনরায় শুরু করা হয়েছে। আজ সোমবার সকালে দৃষ্টিনন্দন কাজের উদ্বোধন করেন উপজেলা চেয়ারম্যান জিয়াইল ইসলাম জিয়া।

এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন,উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার একরামুল হক, শহীদ আতিউর রহমানের ছেলে আজহারুল ইসলাম, শহীদ সুজা উদ্দিন আহমদের ছেলে বদরুল হুদা, শহীদ জব্বারের ছেলে এনামুল কবির,শহীদ মোজাফ্ফর হোসেনের ছেলে মো:আব্দুল্লাহ, ইউপি চেয়ারম্যান কাউসার আলী ডাবলু প্রমুখ।

উপজেলা চেয়ারম্যান জিয়াউর রহমান জিয়া বলেন,একাত্তরের নিহত শহীদদের স্মরণে পীরগঞ্জের ভাতারমারী ফার্ম এলাকায় ২০১৬-১৭ অর্থ বছরে সাড়ে ৩ লাখ টাকা ব্যয়ে শহীদদের স্মৃতি সংরণে একটি প্রকল্প গ্রহন করা হয।কিছুদুর কাজ করার প্রায় প্রায় এক বছর কাজ বন্ধ ছিল।পরবতীৃতে প্রকল্পটি দৃষ্টি নন্দন করার উদ্যোগ নেওয়া হয়।

উল্লেখ্য, ১৯৭১ সালের ১৭ এপ্রিল পাকহানাদার বাহিনী ঠাকুরগাঁও পীরগঞ্জ উপজেলায় প্রথম হানা দেয়। তারা স্থানীয় পেশাজীবিদের ধরে নিয়ে যায় পীরগঞ্জ-ঠাকুরগাঁও সড়কের ভাতারমারী ইক্ষু খামার এলাকায়নিয়ে গিয়ে বেনোয়েট দিয়ে খুচিয়ে ও ব্রাশ ফায়ার করে হত্যা করে ।

এদের ,মধ্যে ছিলেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সুজা উদ্দিন আহম্মেদ, অধ্যাপক গোলাম মোস্তফা, ব্যবসায়ী মোজাফ্ফর হোসেন, আব্দুল জব্বারসহ ৭ জনকে। অধ্যাপক গোলাম মোস্তফার স্মরনে ১৯৯৮ সালে ডাক বিভাগ শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মারক ডাকটিকিট প্রকাশ করে।

পরবতীতে শহীদদের স্মরণে স্মৃতি সৌধ সংরক্ষন ও তাদের সমাধী করার দাবি করে আসছিলেন মুক্তিযুদ্ধে শহীদের পরিবার ও এলাকাবাসী ।

এ অবস্থায় ২০১৬-১৭ অর্থ বছরে পীরগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নিজস্ব অর্থায়নে প্রায় সাড়ে ৩ লাখ টাকা ব্যয়ে শহীদদের স্মৃতি সংরণে একটি প্রকল্প গ্রহন করে। পীরগঞ্জ-ঠাকুরগাঁও সড়কের ভাতারমারী ফার্ম এলাকায় স্মৃতি সৌধ নির্মানে টেন্ডার প্রক্রিয়াসহ স্মৃতি সৌধ নির্মাণের কাজ শুরু করে উপজেলা পরিষদ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য