Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!
09 21 18

শুক্রবার, ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৬ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ১০ই মুহাররম, ১৪৪০ হিজরী

Home - রংপুর বিভাগ - খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে সৈয়দপুরে বিএনপি’র প্রতীকী অনশন

খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে সৈয়দপুরে বিএনপি’র প্রতীকী অনশন

খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে সৈয়দপুরে বিএনপি’র প্রতীকী অনশনমোঃ জাকির হোসেন, সৈয়দপুর (নীলফামারী) সংবাদদাতাঃ বিএনপি’র চেয়ারপার্সন কারাবন্দী বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবিতে নীলফামারীর সৈয়দপুরে প্রতীকী অনশন করেছেন জেলা বিএনপির নেতাকর্মীরা।

App DinajpurNews Gif

বুধবার (১২ সেপ্টেম্বর) বিএনপি’র দলীয় কার্যালয়ের সামনে সকাল ১০টা থেকে বেলা ১২টা পর্যন্ত প্রতীকী অনশন কর্মসূচী পালন করা হয়েছে। প্রতীকী অনশন সাধারণ সম্পাদক আমজাদ হোসেন সরকার সভাপতি আব্দুল গফুর সরকারকে জুস খাইয়ে প্রতীকী অনশন ভাঙ্গলেন।

গণতন্ত্রের মা খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবী জানিয়ে বক্তব্য রাখেন, সৈয়দপুর জেলা বিএনপির সভাপতি ও জেলা পরিষদ সদস্য অধ্যক্ষ আব্দুল গফুর সরকার, সাধারণ সম্পাদক সাবেক জাতীয় সংসদ সদস্য ও পৌর মেয়র আমজাদ হোসেন সরকার, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক কাউন্সিলর জিয়াউল হক জিয়া, সহ-সভাপতি শাহীন আকতার শাহীন, জেলা বিএনপি মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা ও উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রওনক জাহান রেনু, পৌর বিএনপির আহবায়ক গজনাফর আলী মিন্টু, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক এমএ পারভেজ লিটন, জেলা বিএনপির ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক শেখ বাবলু, পৌর কাউন্সিলর আবিদ হোসেন লাড্ডান, মোঃ দুলাল হোসেন, প্রমুখ।

জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মেয়র আমজাদ হোসেন সরকার বলেন, একজন ট্রেন সফর করে হাজার হাজার যাত্রী দুর্ভোগের শিকার হয়েছে। অপর পক্ষ আমরা দলীয় কার্যালয়ের সামনে আমরা অবস্থান ধর্মঘট পালন করতে পারবো না। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে চিকিৎসা না দিয়ে সরকার মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিচ্ছে। খালেদা জিয়া ছাড়া দেশে কোন নির্বাচন হতে দেওয়া হবে না।

আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে গণতন্ত্রের মা খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি করেন নেতাকর্মীরা।

তবে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে খালেদা জিয়াকে মুক্তি দেওয়া না হলে জনগণকে সাথে নিয়ে সারাদেশের ন্যায় সৈয়দপুরেও কঠোর আন্দোলন ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তিনি হুশিয়ারী সংকেত দেন।