ইদলিবে নতুন অভিযানে ৩০ হাজার বাস্তুচ্যুত জাতিসংঘসিরিয়ার সরকারি ও মিত্র বাহিনীগুলো নতুন করে অভিযান শুরুর পর বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত ইদলিব প্রদেশ থেকে ৩০ হাজারেরও বেশি বাসিন্দা পালিয়ে গেছে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ।

সরকারি পক্ষ গত সপ্তাহে বিমান হামলা ও গোলাবর্ষণ শুরু করার পর থেকে ইদলিবের এসব বাসিন্দারা পালাতে শুরু করে বলে সোমবার জানিয়েছে ওই এলাকায় ত্রাণ উদ্যোগের সমন্বয়রত জাতিসংঘের একটি সংস্থা; খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্সের।

সিরিয়ার বিদ্রোহীদের শেষ বড় ঘাঁটি ইদলিব পুনরুদ্ধারে সর্বাত্মক সামরিক অভিযান শুরু করেছে সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদের অনুগত সরকারি ও মিত্র বাহিনীগুলো। এই অভিযানের মুখে ইদলিব থেকে আট লাখ বেসামরিক বাসিন্দা পালিয়ে যেতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে জাতিসংঘের মানবিক বিষয় সমন্বয় দপ্তর (ওসিএইচএ) ।

এতে একুশ শতকের সবচেয়ে শোচনীয় মানবিক বিপর্যয়ের ঝুঁকি তৈরি হতে পারে বলে সতর্ক করেছেন ওসিএইচএ-র প্রধান মার্ক লোকক।

রাশিয়া ও ইরানের সমর্থনপুষ্ট দামেস্ক ইদলিব ও সিরিয়ার উত্তরাপশ্চিমাঞ্চলের বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত এলাকাগুলো পুনরুদ্ধারে বড় ধরনের স্থল অভিযানের প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে।

ইদলিবে অস্ত্রবিরতি করা নিয়ে শুক্রবার তুরস্ক, ইরান ও রাশিয়ার প্রেসিডেন্টত্রয়ের এক বৈঠক ব্যর্থ হয়। এরপর সিরিয়া ও রাশিয়ার যুদ্ধবিমানগুলো ফের প্রদেশটিতে বিমান হামলা শুরু করে।

ওসিএইচএ-র মুখপাত্র ডেভিড সোয়ানসন রয়টার্সকে জানিয়েছেন, রোববার পর্যন্ত সিরিয়ার উত্তরপশ্চিমাঞ্চল থেকে ৩০,৫৪২ জন বাস্তুচ্যুত হয়ে ইদলিবের অন্যান্য এলাকায় চলে গেছে।

বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত ইদলিব ও সংলগ্ন লাতাকিয়া, হামা ও আলেপ্পো প্রদেশের ছোট কয়েকটি অংশে প্রায় ২৯ লাখ মানুষের বাস। এদের অর্ধেকই সিরিয়ার অন্যান্য অংশ থেকে বাস্তুচ্যুত হয়ে এখানে এসে আশ্রয় নিয়েছিল।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য