Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!
09 24 18

সোমবার, ২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৯ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ১৩ই মুহাররম, ১৪৪০ হিজরী

Home - দিনাজপুর - কর্ণাইয়ে আদিবাসীর জমি জোবর দখল বন্ধে স্মারকলিপি ও সংবাদ সম্মেলন

কর্ণাইয়ে আদিবাসীর জমি জোবর দখল বন্ধে স্মারকলিপি ও সংবাদ সম্মেলন

কর্ণাইয়ে আদিবাসীর জমি জোবর দখল বন্ধে স্মারকলিপি ও সংবাদ সম্মেলনসংবাদ সম্মেলনঃ দিনাজপুর সদর উপজেলার কর্ণাই গ্রামসহ বিভিন্ন স্থানে আদিবাসীদের জমি ভুয়া ও জাল দলিলের মাধ্যমে দখল প্রচেষ্টারোধে গতকাল আদিবাসীদের ৪টি সংগঠনের উদ্দ্যোগে স্মারকলিপি প্রদান ও সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

App DinajpurNews Gif

সোমবার সকালে দিনাজপুর প্রেসক্লাব মিলনায়তনে আদিবাসীদের ৪টি সংগঠন বাংলাদেশ আদিবাসী সমিতি,বাংলাদেশ কৃষক ফেডারেশন,বাংলাদেশ কিষানী সভা ও বাংলাদেশ মাইনোরিটি ওয়াচ এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন বাংলাদেশ আদিবাসী সমিতি দিনাজপুর জেলা শাখার সভাপতি স্বপন এক্কা। তিনি লিখিত বক্তব্যে বলেছেন,সদরের কর্ণাই গ্রামের বড়কা মাঝির ১৪ একর এবং ১৪ ঝুকু সাঁওতালের ১৪ একর জমি একই গ্রামের মৃত ওসমান আলীর পুত্র আফসার আলী এবং মৃত সাজ্জাদ আলীল পুত্র মো: গুদও আলী ও আনোয়ারুল ইসলাম গং ২টি যথাক্রমে ৭৭ ও ২৮১ নম্বর জাল দলিল তৈরী করে পৃথক স্থানের মোট ২৪ একর জমি দখলের অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

তারা চক্রান্তমুলক ভাবে অপরাপর যোগসাজোশে আদালতে তাদের নিজেদের লোক বাদী-বিবাদী সাজিয়ে ৩৬/০২, ২২৩/০৯ ও ৩২২/১০ নং মামলা আনয়ন করেন। আদালতকে ভুল বুঝিয়ে তারা একতরফা ভাবে রায় নিয়ে ৪৯৩ নং খতিয়ানের জমি জেলা প্রশাসন ও পুলিশের সহযোগীতায় দখলের চেষ্টা করলে আদিবাসীরা তাতে বাধা প্রদান করেন।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, এসিল্যান্ড মো: গোলাম রব্বানী (বর্তমানে অন্যত্র বদলী) সদর ভুমি অফিসের কানুনগু মো: সাইফুল ইসলাম এবং ইউনিয়ন ভুমি সহকারী কর্মকর্তা মো: মোস্তাফিজুর রহমান অনৈতিক ভাবে আর্থিক লাভের সুযোগ নিয়ে জালিয়াত চক্রের পক্ষে প্রতিবেদন তৈরী করার মাধ্যমে ৪৯৩ নং এসএ রের্কডে নাম ঢুকিয়েছেন। এবাপারে জেলা রেজিষ্টার মহোদয় ৭৭ ও ২৮১ নং জাল দলিলের বিষয়ে সার্টিফিকেট প্রদান করেছেন।

তিনি আরো বলেন, দি ষ্টেট একুয়েসিশন এন্ড টেনন্যান্সি এক্ট ১৯৫০ এর ৯৭ ধারায় সাংবিধানিক ভাবে স্বীকৃত আদিবাসীদের জমিজমা সংরক্সনের জন্যে জেলা প্রশাসক অভিভাবক এবং আইনমতে আদিবাসীদের জমিকে ঘিরে আদালত কোন রায় বা ডিক্রি প্রদান করতে পারেন না, তার পরেও রায় দেয়া হয়েছে। এছাড়াও আদিবাসীদের জমি দখলের জন্য পেশী শক্তি,অর্থের বিনিময়ে প্রশাসনের লোকজনকে পক্ষে নেয়াসহ নানান ভাবে ভুমি দস্যুরা প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

সংবাদ সম্মেলনে ভুমিদস্যুদের পেশী শক্তির জোবরদখল প্রক্রিয়া ও লোলুপ দৃষ্টি বন্ধে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও জেলা প্রশাসনের সহযোগীতা প্রত্যাশা করেন নেতৃবৃন্দ। এসময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কৃষক ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সদস্য স্বপন ভুইয়া, দিনাজপুর জেলা শাখার সভাপতি শ্রী তারক চন্দ্র রায়, কিষানী সভার সভাপতি সাবিহা বেগম, মাইনোরিটি ওয়াচ দিনাজপুর চেপ্টারের কমল কর্মকারসহ স্থানীয় আদিবাসী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ। সংবাদ সম্মেলনের পর আদিবাসী নেতাদের একটি প্রতিনিধি দল জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপির কপি জমা দিতে যান।