রাশিয়ার হুঁশিয়ারির মধ্যে সিরিয়ায় আরো সেনা পাঠিয়েছে আমেরিকাসিরিয়ার মাটিতে আরো অন্তত ১০০ মেরিন সেনা পাঠিয়েছে আমেরিকা। সিরিয়ার দক্ষিণে সম্ভাব্য অভিযান সম্পর্কে রাশিয়ার পক্ষ থেকে বার বার হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করার মধ্যেই আমেরিকা সেখানে সেনা পাঠালো।

গতকাল (শনিবার) মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ইরাক ও জর্দান সীমান্তবর্তী আত-তানফ শহরের একটি ঘাঁটিতে হেলিকপ্টারে করে এসব সেনাকে নেয়া হয়। ওই এলাকায় আমেরিকার একটি অবৈধ সামরিক ঘাঁটি রয়েছে যেখানে কথিত সিরিয়ান ডেমোক্র্যাটিক ফোর্সেস বা এসডিএফ-কে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়।

আমেরিকা দাবি করে আসছে, এসডিএফ সদস্যরা উগ্র সন্ত্রাসী গোষ্ঠী দায়েশের বিরুদ্ধে লড়াই করছে। তবে সিরিয়া ইস্যুতে যেহেতু আমেরিকা ও সৌদি আরব একই দৃষ্টিভঙ্গি পোষণ করে এবং দায়েশকে সমর্থন দিয়ে আসছে সৌদি আরব, সে কারণে দায়েশের বিরুদ্ধে মার্কিন সমর্থিত এসডিএফ’র লড়াইয়ের দাবি নিতান্তই মিথ্যা।

এদিকে, মার্কিন কেন্দ্রীয় কমান্ড জানিয়েছে, আত-তানফ শহরে মেরিন সেনা মোতায়েন করার পর তারা সেখানে সামরিক মহড়ায় অংশ নেবে। সিরিয়ায় আমেরিকার যেসব সেনা রয়েছে তাদেরকে দীর্ঘদিন সেখানে রাখা হবে বলে সাম্প্রতিক দিনগুলোতে মার্কিন কর্মকর্তারা জানিয়ে আসেছন।

তবে সিরিয়া সবসময় বলছে, বিনা অনুমতিতে মার্কিন সেনাদের সিরিয়ার মাটিতে অবস্থান সম্পূর্ণ বেআইনি এবং অবৈধ। মার্কিন কর্মকর্তারা এও বলেছেন যে, সিরিয়া থেকে ইরানি সেনা সরিয়ে নিলে তারাও সেনা সরাবে। এর বিপরীতে ইরান বলছে, সিরিয়ায় তারা কোনো সেনা মোতায়েন করে নি বরং দামেস্ক সরকারের অনুরোধে সিরিয়ায় সামরিক উপদেষ্টার কাজ করছেন ইরানি সেনা কর্মকর্তারা।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য