সৌদিতে মুসলিম পণ্ডিত ‍আল-আওদাহ’র মৃত্যুদণ্ড দাবিসৌদি আরবে মুসলিম শিক্ষাবিদ সালমান আল-আওদাহ’র মৃত্যুদণ্ড দাবি করেছে সরকারি আইনজীবীরা। স্থানীয় গণমাধ্যম, মানবাধিকারকর্মী ও তার পরিবারের সদস্যরা একথা জানিয়েছে।

জাতিসংঘের বিশেষজ্ঞরা আওদাহ’কে একজন সংস্কারবাদী হিসেবে বর্ণনা করেছেন। এক বছর আগে সৌদি ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান ভিন্নমত পোষণকারীদের বিরুদ্ধে অভিযান শুরুর সময় তিনি গ্রেফতার হয়েছিলেন।

উল্লেখ্য, গত বছরের জুন মাসে সংযুক্ত আরব আমিরাত, মিশর ও বাহরাইনের সঙ্গে মিলে যৌথভাবে কাতারের ওপর স্থল, জল, আকাশপথে অবরোধ জারি করে সৌদি আরব।

ওই বছরের ৯ সেপ্টেম্বরে আওদাহ তার ১ কোটি ৪০ লাখ অনুসারীর উদ্দেশ্যে করা এক টুইটে লিখেন, সৃষ্টিকর্তা যেন তাদের (উপসাগরীয় দেশগুলো) হৃদয়ে মানুষের ভাল করার জন্য ঐক্যতা এনে দেন। এরপরই কাতারের সঙ্গে বিবাদ ভুলে সংহতি প্রকাশের আহবান জানানোয় তাকে গ্রেফতার করা হয়।

স্থানীয় গণমাধ্যম ওকাজ অনুসারে, লমান আল আওদাহর বিচার শুরু করেছে সৌদি সরকার। ৩৭ ধারায় তার মৃত্যুদণ্ড চায় রাষ্ট্রপক্ষ। লন্ডন-ভিত্তিক সৌদি মানবাধিকার বিষয়ক সংস্থা এএলকিউএসটি ও অন্যান্য মানবাধিকারকর্মীরা বলেছেন, আওদাহর বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগগুলোর মধ্যে শাসকের বিরুদ্ধে উস্কানিমূলক প্রচারণা ও অশান্তি ছড়ানোর অভিযোগও রয়েছে।

উল্লেখ্য, আওদাহ হলেন, কাতার-ভিত্তিক ‘ইন্টারন্যাশনাল ইউনিয়ন অব মুসলিম স্কলার’-এর সেক্রেটারি জেনারেল। এটি বিশ্বব্যাপী মুসলিম স্কলারদের একটি বিশাল প্লাটফর্ম। – আল জাজিরা

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য