ঘূর্ণিঝড় জেবির আঘাতে ছিন্নভিন্ন জাপান, নিহত ১০জাপানে ঘূর্ণিঝড় জেবি’র আঘাতে অন্তত ১০ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরো ৩০০ জন। জাপানের বিগত ২৫ বছরের ইতিহাসে সবচেয়ে ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড় ছিল এটি।

জেবি’র আঘাতে ছিন্নভিন্ন হয়ে গেছে জাপানের দু’টি প্রধান শহর কিয়োতো ও ওসাকা। গমনপথে প্রলয়কাণ্ড ঘটিয়ে গেছে জেবি।

সাময়িকভাবে বাতিল করে দেওয়া হয় ওসাকা’র সকল প্রকারের ট্রেন চলাচল, ফ্লাইট ও ফেরি। আটকা পড়ে হাজার হাজার যাত্রী। ওসাকা ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্ট থেকে সরিয়ে নেওয়া হয় কয়েক হাজার যাত্রীকে।

ধীরে ধীরে উত্তরের দিকে সরে যায় জেবি। কমে আসে বাতাসের তীব্রতা। তবে এখনো বন্যা ও ভূমিধ্বসের জন্য সতর্কতা জারি করে রেখেছে ওসাকা কর্তৃপক্ষ।

বুধবার সকাল পর্যন্ত, ১২ লাখ মানুষকে নিরাপদে সরে যেতে বলা হয়েছে। এছাড়া আরো ৩০ হাজার মানুষকে আবশ্যিক না হলেও জোরালোভাবে নিরাপদ আশ্রয়ে যাওয়ার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে দমকল ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সংস্থা।

ঘূর্ণিঝড়ে বিদ্যুৎ-বিচ্ছিন্নতায় ভুগেছে ২০ লাখেরও বেশি বাড়ি, স্কুল ও প্রতিষ্ঠান। বন্ধ ছিল প্রায় সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। নাগোয়া ও ওসাকাসহ দেশজুড়ে বাতিল করা হয়েছে ৮০০ ফ্লাইট। -বিবিসি

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য