দিনাজপুরে সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত সৈনিকের স্ত্রী ও জাতীয় ভলিবল টিমের খেলোয়াড়কে ইয়াবা দিয়ে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানোর অভিযোগ সংবাদ সম্মেলনঃ দিনাজপুরে চাঁদা না দেয়ায় ইয়াবা দিয়ে স্ত্রীকে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানোর অভিযোগ করেছেন বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত একজন সৈনিক বাবু হোসেন। শনিবার সকালে দিনাজপুর প্রেসক্লাবে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এই অভিযোগ করেন জেলা সদরের ফকিরপাড়া এলাকার শফিউদ্দিন আহমেদের ছেলে মো: বাবু হোসেন।

লিখিত অভিযোগে তিনি বলেন, তিনি বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত সৈনিক (নম্বর-৪০০৮১০০)। বর্তমনে তিনি জমিসহ ধান, চাল, গম, ভুট্টা, ইটভাটা ও কয়লার ব্যবসা করছেন। তার স্ত্রী শাবানা আক্তার বাংলাদেশ জাতীয় ভলিবল টিমের একজন খেলোয়াড়।

আগে পাক পাহাড়পুর এলাকায় বসবাস করলেও কিছুদিন পূর্বে ফকিরপাড়া এলাকায় বাড়ি ক্রয় করেন। বাড়ী ক্রয় করার সময় স্থানীয় ফরহাদ হোসেন নামে স্থানীয় একজন তার কাছে চাঁদা দাবি করে। চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানোর হুমকী প্রদান করে চলে যান।

গত ২৭ আগষ্ট ফরহাদ হোসেন অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য বাবু হোসেনের বাড়িতে গোপনে প্রবেশ করে রান্না ঘরের চুলায় ও বারান্দার সোফার নিচে ১৬ পিস ইয়াসা ট্যাবলেট রেখে আসে। পরে কোতয়ালী থানা পুলিশ বাড়িতে প্রবেশ করে ইয়াবাগুলো উদ্ধার করে ও বাবু হোসেনের স্ত্রী শাবানা আক্তারকে অসম্মানজনকভাবে কোতয়ালী থানায় তুলে নিয়ে যায়।

পরে পুলিশ প্রশাসন শাবানা আক্তারকে ৫১ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট দিয়ে চালান দেয়। বিষয়টি স্থানীয় কয়েকটি পত্রিকায় মিথ্যা ও কুচক্রান্ত করে প্রকাশ করে যে, তিনি দুই স্ত্রীকে দিয়ে ইয়াবা ট্যাবলেটের ব্যবসা করছেন।

তিনি অভিযোগ করেন, জমির ব্যবসায় লিপ্ত হওয়ার পর থেকেই অনেক লোকজন চাঁদা দাবি করেছে। কিন্তু তাদের প্রস্তাবকে প্রত্যাখ্যান করায় এ শত্রুতার মূল কারণ ও চাঁদাবাজরা তার পরিবারের লোকজনের একের পর এক ক্ষতি সাধন করছেন। পরিবারের সকলকে নিয়ে শান্তিপূর্ণভাবে বসবাস করার জোর প্রত্যাশা কামনা করে স্ত্রীকে মিথ্যা মামলা হতে মুক্ত করতে প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন,মো: তোয়াব আলী,মো: আলমগীর হোসেন ও আজিনুর ইসলাম লিটু প্রমুখ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য