পলাশবাড়ীতে কোচ-ট্রাক্টর সড়ক দূর্ঘটনায় নিহত ৬ আহত অন্ততঃ ১৫আরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধা থেকেঃ গাইবান্ধার পলাশবাড়ী-গাইবান্ধা সড়কে রাইচমিল নামক স্থানে ট্রাক্টরের সাথে ঢাকাগামী দরবার ব্যানারের সাউদিয়া-হাসান পরিবহনের একটি কোচের (ঢাকা মেট্রো-ব-১১-৪২৪৯) মুখোমুখি সংঘর্ষে একই পরিবারের তিনজনসহ নিহত ৫ এবং আহত হয়েছেন অন্ততঃ ১৫ জন। শুক্রবার দিনগত মধ্যরাতে গাইবান্ধা-পলাশবাড়ী সড়কের রাইচমিল এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

খবর পেয়ে থানা পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস ডিভেন্স এবং বিদ্যুৎ বিভাগের সম্মিলিত উদ্ধার অভিযান সম্পন্ন করে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, (সাউদিয়া-হাসান) পরিবহনের একটি বাসটি গাইবান্ধা থেকে ঢাকা যাচ্ছিল। বাসটি পলাশবাড়ীর রাইসমিল এলাকায় পৌঁছিলে বিপরীত দিক থেকে আসা হাবিবা হাকিম ফুড নামের একটি ট্রাক্টরের সংঘর্ষ হয়। এসময় চালক নিয়ন্ত্রণ হারালে বাসটি উল্টে খাদে পড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই একই পরিবারের তিনজনসহ মোট চারজন ও হাসপাতালে নেয়ার পথে এক শিশুর মৃত্যু হয়।

এছাড়াও এ ঘটনায় আরো ১৫ জন যাত্রী আহত হন। খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস ডিফেন্স এবং বিদ্যুৎ বিভাগের কর্মীরা ঘটনাস্থলে এসে আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ ভর্তি করে।
দূর্ঘটনায় নিহতরা হলেন সুন্দরগঞ্জ উপজেলার চাচিয়া গ্রামের আলীমুদ্দিুনের ছেলে এমদাদুল হক (২৫), তার স্ত্রী কাকুলী খাতুন (২০) ও শিশু সন্তান হেনা খাতুন (৫) একই এলাকার শাহিন মিয়ার স্ত্রী আফরুজা বেগম (৩০)। নিহত চারজনের পরিচয় নিশ্চিত করা সম্ভব হলেও একজনের পরিচয় পাওয়া যায়নি। আহতদের নাম পরিচয় পাওয়া যায়নি।

পলাশবাড়ী থানা অফিসার ইনচার্জ (চার্জ) মোস্তাফিজুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, দূর্ঘটনায় শিশুসহ পাঁচজন নিহত ও ১৫ জন আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে চারজনকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ ভর্তি করা হয়েছে। খাদে পড়া বাসটি উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা।

পরে খরব পেয়ে জেলা প্রশাসক গৌতম চন্দ্র পাল, পুলিশ সুপার প্রকৌশলী আব্দুল মান্নান মিয়া, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মেজবাউল হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এসময় জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিহত প্রত্যেকের পরিবারের মাঝে ৫ হাজার টাকা করে অনুদান প্রদান করা হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য