কাহারোলে নাইট কোচ-ট্রাক মুখোমুখী সংঘর্ষে নিহত-০২দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুরের কাহারোলে নাইট কোচ-ট্রাক মুখোমুখী সংঘর্ষে দগ্ধ হয়ে নাইট কোচ এবং ট্রাকের চালক সহ দুইজন নিহত। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন ২০জন। সংঘর্ষে আগুন লেগে দুই গাড়ী পুড়ে যায়। তাৎক্ষণিক ভাবে বাস ও ট্রাক চালক পুড়ে মারা যায়।

বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৯টায় কাহারোল উপজেলার ঢাকা-পঞ্চগড় মহাসড়কের মুকুন্দপুর ইউনিয়নের বটতলা পীরের হাট নামক স্থানে এক দুর্ঘটনায় ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী মো. আনোয়ার হোসেন জানান, পঞ্চগড় থেকে ছেড়ে আসা নাইট কোচ কেয়া পরিবহন (ঢাকা মেট্রো-ব-১৫-১৭৪০) এবং একটি বিপরীত মুখী ট্রাক (যশোহর-ড-১১-৪১৩২) রাত সাড়ে ৯টায় কাহারোল উপজেলার ঢাকা-পঞ্চগড় মহাসড়কের মুকুন্দপুর ইউনিয়নের বটতলা মোড়ে মুখোমুখী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ সময় নাইট কোচ এবং ট্রাকে আগুন লেগে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই পুড়ে মারা যায় নাইট কোচ এবং ট্রাকের চালক।

সংবাদ পেয়ে দিনাজপুর জেলা শহর থেকে ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট এসে আগুন নিয়ন্ত্রন করে। ঘটনার পর থেকে রাত সারে ১২টা পর্যন্ত ফায়ার সার্ভিস, পুলিশ ও মটর পরিবহন শ্রমিক সদস্যরা যৌথভাবে ঘটনাস্থলের পুড়ে যাওয়া কেয়া পরিবহনের নৈশ্য কোচ ও ১০ চাক্কার ট্রাক ঢাকা-পঞ্চগড় মহাসড়ক থেকে সরিয়ে নেয়ার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

কাহারোলে নাইট কোচ-ট্রাক মুখোমুখী সংঘর্ষে নিহত-০২সেই কারনে ঘটনাস্থলের উভয় পাশে ৪ কিলোমিটার রাস্তা বিভিন্ন মুখি যানবাহন আটকা পরেছে। কোচ, ট্রাক, মিনিবাস, মাইক্রো বাস, প্রাইভেট কার, নছিমন, করিমন, পাগলু, অটো বাইক, মটর সাইকেল, ট্রাকটর, রিক্সা-ভ্যানসহ ছোট ছোট যান-বাহন গুলো বিভিন্ন বাইপাস সড়কে বের হয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছে।

থানার এসআই মোঃ দুলাল হক জানান, স্থানীয় ভাবে যন্ত্রপাতি ব্যবহার করে পুড়ে যাওয়া কোচ ও ট্রাক মহাসড়ক থেকে সড়িয়ে নেয়ার চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। এখন পযর্ন্ত রংপুর থেকে কেরেং এসে পৌছায়নি। তবে ২ ঘন্টার মধ্যে রাস্তায় পুড়ে যাওয়া বাস-ট্রাক সরিয়ে নিয়ে নিরাপদে যানবাহন চলাচল করার সুযোগ করা যেতে পারে।

বীরগঞ্জ থানার অফিসার্স ইনচার্জ সাকিলা পারভীন সংবাদের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ঘটনার পর থেকে আইন শৃঙ্খলা অবস্থা নিয়ন্ত্রনে রয়েছে। রাত ১-০০মিঃ এ সংবাদ লেখা পর্যন্ত সড়ক দুর্ঘটনা সংক্রান্ত বিষয়ে কোন মামলা থানায় রের্কড করা হয়নি।

 

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য