কয়লা দূর্নীতির দায় এড়াতে পারবে না মন্ত্রী এমপিরাঃ মনসুরষ্টাফ রির্পোটারঃ জাতীয়তাবাদি মুক্তিযোদ্ধা দলের কেন্দ্রিয় কমিটির সহ-সভাপতি ও সাবেক মন্ত্রী আলহাজ্জ¦ মনসুর আলী সরকার অভিযোগ করে বলেছেন, বড়পুকুরিয়া কয়লা খনিতে কয়লা লোপাট ও অনিয়ম দুর্নীতির দায় স্থানীয় সংসদ সদস্য, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী এ্যাডভোকেট মোস্তাফিজুর রহমানের।

তিনি বলেন তার নির্বাচনীয় এলাকায় বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি ও মধ্যপাড়া পাথর খনি। এই খনি দুটো জাতীয় সম্পদ, তার রক্ষাবেক্ষন করার দায়ীত্ব স্থানীয় সংসদ সদস্যর, এখানে যে ঘটনায় ঘটবে তার দায়দায়িত্ব তাকেই নিতে হবে।

বড়পুকুরিয়া কয়লা খনিতে এক লাখ ৪৪ হাজারটন কয়লা লোপাটের প্রতিবাদে আজ বৃহস্পতিবার বেলা ১২ টায় দিনাজপুরের ফুলবাড়ী রাবিয়া কমিনিউটি সেন্টারে, জাতীয়তাবাদি মুক্তিযোদ্ধা দলের উদ্যেগে সংবাদ সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এই অভিযোগ করেন।

সংবাদ সম্মেলনে জাতীয়তাবাদি মুক্তিযোদ্ধা দলের ফুলবাড়ী শাখার আহবায়ক ডিএডি(অব) মাহবুবুর রহমানের সভাপতিতে, প্রধান অতিথি কেন্দ্রিয় কমিটির সহ-সভাপতি আলহাজ¦ মনসুর আলী সরকার ছাড়ার, অনান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ফুলবাড়ী শাখার সদস্য সচিব মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাই, উপজেলা বিএনপির সহসভাপতি আব্দুল মজিদ মন্ডল, নজমুল হক নাজিম, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আইয়ুব আলীসহ বিএনপির স্থানীয় নেতৃবৃন্দরা।

আলহাজ মনসুর আলী সরকার বলেন, বড়পুকুরিয়া কয়লা খনিটি সাবে রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান সুচনা করেছেন আর সাবেক প্রধান মন্ত্রী খালেদা জিয়া বাস্তবায়ন করেছেন, এবং মধ্যপাড়া পাথর খনিটি সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান শুরু করেছেন। এই খনি গুলো দেশের জাতীয় সম্পদ, কিন্তু বর্তমান সরকার তাদের দলিয আনুগত্য লোককে খনিতে পদায়ন করে তাদের মাধ্যমে লুটপাট শুরু করেছে। আজকে খনিতে কয়লা নাই, কয়লার অভাবে বড়পুকুরিয়া তাপ বিদুৎ বন্ধ হয়ে পড়েছে, ফলে সারা উত্তরাঞ্চল আজ অন্ধকারে পড়েছে। তিনি বলেন কয়লা দুর্নীতির মাধ্যমে আজ ফুলবাড়ীসহ আশপাশের অনেকে আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ হয়ে গেছে, তরা সকলে স্থানীয় সংসদ সদস্য ও মন্ত্রীর অনুসারী। এর দায় যেমন বর্তমান সরকারের, তেমনী স্থানীয় সংসদ সদস্যর।

হাজি মন্সুর আলী সরকার বলেন এই অঞ্চলে (ফুলবাড়ী-পার্বতীপুর) যা কিছু উন্নায়ন হয়েছে সবেই তার হাতে ও বিএনপি সরকারে সময়, স্থানীয় সংসদ সদস্য ও প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী তার অনুপুস্থিতির সুযোগে বার বার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছে, কিন্তু কোন উন্নায়ন করতে পারেনি। এলাকার রাস্তা-ঘাটের বেহাল দশা, অনেক স্কুল কলেজ এখন পর্যন্ত এমপিও হয়নি, ফুলবাড়ীত জেলা বাস্তবায়নের জন্য ১৯৭৯ সালে মন্ত্রী পরিষদ অনুমতি দিলেও এখন পর্যন্ত বাস্তবায়ন হয়নি। এই জন্য বর্তমান সংসদ সদস্য প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রীকে একজন ব্যার্থ মন্ত্রী হিসেবে উল্লেখ করেন।

হাজি মন্সুর আলী সরকার বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে বলেন মুক্তিযুদ্ধ হয়েছিল মানুষের গনতান্ত্রিক অধিকার, মতপ্রকাশের অধিকার বাস্তবায়নের জন্য, বর্তমান সরকার মানুষের গনতান্ত্রিক অধিকার ও মতপ্রকাশের অধিকার কেড়ে নিয়ে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে গণাটিপে হত্যা করেছে। তিনি বলেন দেশে এখন ক্লান্তিকাল চলছে, সরকার ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য গুম,খুন ও বিরোধিমতকে দমন পীড়ন শুরু করেছে। দেশের মানুষের গনতান্ত্রিক অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য গনতন্ত্রকে পুর্নপ্রতিষ্ঠার জন্য দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে গনতন্ত্র উদ্ধারের আন্দোলনে সকলকে যোগ দেয়ার আহবান জানান।

উল্লেখ্য আলহাজ মনসুর আলী সরকার দিনাজপুর-৫ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী, জাতয়িতাবাদি দল বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা সদ¯্র ও কেন্দ্রিয় কমিটির সাবেক কোষাধক্ষ, বর্তমানে জাতীয়তাবাদি মুক্তিযোদ্ধা দরের কেন্দ্রিয় কমিটির সহ-সভাপতি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য