আপন সহোদরের বিরুদ্ধে জমি দখল ও প্রাননাশের হুমকী সংবাদ সম্মেলনঃ আপন ছোট ভাইয়ের বিরুদ্ধে ২ একর ৭ শতাংশ জমি দখল ও প্রাননাশের অভিযোগ এনে সংবাদ সম্মেলন করেছেন বড় ভাই বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ইএমই কোরের সার্জেন্ট মো: ময়নুল হক (এলপিআর)।

বুধবার সকালে দিনাজপুর প্রেসক্লাব মিলনায়তনে চিরিরবন্ধর উপজেলার আন্ধারমুহা গ্রামের আলহাজ্ব মো: আতিকুর রহমানের ১ম পুত্র ও বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ইএমই কোর রংপুরের সার্জেন্ট মো: ময়নুল হক (এলপিআর) সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন ।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন,আপন সহোদর ছোট ভাই মো: এনামুল হক জমি দখলের জন্যে তার প্রাননাশের হুমকী দিচ্ছে। অনেক অত্যাচার নির্যাতন সহ্যসহ হত্যার হুমকী-ধুমকীর পর নিরুপায় হয়েই সরকার ও স্থানীয় প্রশাসনের কাছে নিজের জীবন সহায় সম্পত্তি রক্ষার জন্যে সহযোগীতা পেতেই সংবাদ সম্মেলন করছেন।

তিনি বলেন, চিরিরবন্দর থানা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক আহসানুল আলম মুকুলের সহযোগীতা নিয়ে থানা প্রশাসনের উপর প্রভাব খাটিয়ে আমার আপন ছোট ভাই মোঃ এনামুল হক এবং তার পুত্র মোঃ আব্দুর রহমান নাহিদ দোদার্ন্ড প্রতাপের সাথে তারা সাঙ্গপাঙ্গো নিয়ে আমার মত নিরহ মানুষের ২ একর ৭ শতাংশ ভুমি জোবর দখল করতেই নির্যাতন নিপিড়ন চালাচ্ছে। উল্লেখিত দুই জনের নেতৃত্বে পরিচালিত ক্যাডার বাহিনীর সদস্য মোঃ আলা উদ্দীন,মো: আব্দুল বারী ও মো: আমিনুলসহ অন্যদের অত্যাচারে আমি এবং আমার পরিবার অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছি।

আমি তাদের বিরুদ্ধে চিরিরবন্দর থানায় বারং বার অভিযোগ করেও কোন সমাধান ও অভিযোগ দায়ের করতে পারিনি। নিরুপায় হয়ে আমার সম্পদ ও জীবন রক্ষায় দিনাজপুর আদালতে নির্যাতন ও হত্যার হুমকী প্রদানের অভিযোগে মামলা করেছি। মামলা করার কারনে তারা দিন দিন অত্যাচার ও নির্যাতনের মাত্রা আরো বাড়িয়েছে।

জমি দখলের জন্যে আমার আপন ছোট ভাই এনামুল ও তার পুত্র নাহিদ এবং সঙ্গীরা গত ২৭ মে ২০১৮ এবং ২৪ আগষ্ট ২০১৮ প্রকাশ্য দিবালোকে শত শত মানুষের সামনে আন্ধারমুহা বাজারে আমাকে মেরে ফেলার উদ্ধেশ্যে লোহার রোড নিয়ে হামলা করে। এসময় এনামুল লোহার রড দ্বারা আমার মাথায় উর্পযুপরী আঘাত করলে আমি গুরুত্বোর আহত হয়ে জ্ঞান হারিয়ে ফেলি,আমার স্ত্রী উম্মে কুলসুম আমাকে রক্ষায় এগিয়ে এলে তাকেও মারধোরসহ বিবস্ত্র করে শ্লীলতাহানী করা হয়।

ওই হামলায় আমি আহত হয়ে এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৫দিন চিকিতসাধীন ছিলাম। চিকিতসা শেষে বাড়ি ফিরে এসে তাদের বিরুদ্ধে চিরিরবন্ধর থানায় মামলা করতে গেলে অজ্ঞাত কারনে আমার মামলা গ্রহন করা হয়নি। পুলিশ স্থানীয় একজন সরকার দলীয় নেতার প্রভাবের কারনেই এনামুল এবং তার সঙ্গীদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা গ্রহন করছেন। আমার পিতা আলহাজ্ব আতিকুর রহমানও ছোট পুত্র এনামুলের ছলছাতুরী,প্রতারনা,মিথ্যা মামলা প্রদান এবং বিভিন্ন অপকর্মের অভিযোগে পুলিশ সুপার মহোদ্বয়ের নিকট আইনগত ব্যবস্থাগ্রহনের সহযোগীতা চেয়ে লিখিত আবেদন করেন।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি জানান, বর্তমানে পৈত্রিকভাবে প্রাপ্ত ১ একর ৭ শতাংশ এবং নিজস্ব ক্রয় করা আরো ১ একরসহ মোট ২ একর ৭ শতাংশ সম্পত্তিতে উঠতে পারছিনা। এ সুযোগে এনামুল জমির মাটি কেটে ভাটায় বিক্রিসহ ফলদ ৮টি আম-কাঠাল গাছ কেটে বিক্রি করে দিয়েছে। সে আশংকা প্রকাশ কওে বলেন, সংবাদ সম্মেলন করে ফিরে গিয়ে জমিতে গেলে বেঁচে থাকতে পারবো কিনা তাতেও তার সন্দেহ রয়েছে।

তিনি প্রশাসনের নিকট দাবী করে বলেন,আমার ২একর ৭ শতাংশ জমিতে র্নির্বিগ্নে চাষাবাদ করাসহ সকল স্বাভাবিক কর্মকান্ড চালাতে আইন-শৃংখলা বাহিনীর সর্বাত্বক সহযোগীতা চাই। সেই সাথে জমি দখল অপচেষ্টার হতা এবং আমার প্রাননাশের হুমকীদাতা মো: এনামুল হক এবং তার সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার ও কঠোর শাস্তি দাবী করেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য