মো: জাকির হোসেন, সৈয়দপুর (নীলফামারী) সংবাদদাতা ॥ নীলফামারীর সৈয়দপুর পৌর এলাকার কুন্দল কেন্দ্রীয় শ্মশান সংলগ্ন খরখরিয়া নদী থেকে এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করেছে স্থানীয়রা। ২৯ আগস্ট সকালে উদ্ধারকৃত ওই ব্যক্তির নাম আহসান হাবিব হৃদয় (৪০)। সে সৈয়দপুর উপজেলার কামারপুকুর ইউনিয়নের নিজামের চৌপথী এলাকার বাসিন্দা সৈয়দপুর পৌরসভার সাবেক প্রকৌশলী মো: রুস্তম আলীর ছেলে।

স্থানীয় লোকজন সূত্রে জানা যায়, নদীতে লাশটি পড়ে থাকতে দেখে তারা জীবিত আছে ভেবে ফায়ার সার্ভিসকে খবর দিলে উদ্ধারকর্মীরা এসে তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় ১০০ শয্যা হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. জাকিয়া সুলতানা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে খবর পেয়ে পরিবারের লোকজন এসে লাশ দাফনের জন্য নিয়ে যায়।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, হৃদয়কে গত রাত থেকে কোথাও খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। সে নিয়মিত নেশা করতো। এ কারণে প্রায়ই রাত-বিরাতে বাড়ির বাইরে থাকতো। সে কারণে তারা তার নিখোঁজের ব্যাপারে তেমন একটা উদ্বিগ্ন ছিলনা।

ফায়ার সার্ভিস ও চিকিৎসক সূত্রে জানা যায়, তার শরীরে আঘাতের কোন চিহ্ন নেই। তাছাড়া তার শরীর থেকে দেশীয় মদের গন্ধ পাওয়া যাচ্ছিল। একারণে সন্দেহ করা হচ্ছে যে আহসান হাবিব হৃদয়ের মৃত্যুর কারণ অতিরিক্ত মদ পান হতে পারে।

তবে লাশ নদীতে কেন এ নিয়ে এলাকাবাসীর ধারণা, সে গত ২৮ আগস্ট রাতে শহরের দেশীয় মদ ভাটি থেকে মদ খেয়ে মাতাল অবস্থায় কুন্দল শ্মশান এলাকায় চলে আসে এবং রাতের যে কোন সময় সে নদীতে পড়ে যায় এবং সেখানেই তার মৃত্যু হয়।

সৈয়দপুর থানার অফিসার ইনচার্জ শাহজাহান পাশা মুঠোফোনে জানান, পরিবারের পক্ষ থেকে কোন অভিযোগ না থাকায় এ ব্যাপারে একটি ইউডি মামলা হয়েছে এবং লাশ দাফনের জন্য পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য