সৌদি আরবে এক মাসে বিয়ে ১০ হাজার, বিচ্ছেদ ৫ হাজারসৌদি আরবে এক মাসে দশ হাজার বিয়ে ও পাঁচ হাজার বিবাহ বিচ্ছেদের ঘটনা ঘটেছে। সৌদি আরবের আইন মন্তণালয়ের আরবি শাওয়াল মাসের প্রতিবেদনে এই পরিসংখ্যান তুলে ধরা হয়েছে। আল-হায়াত পত্রিকার বরাত দিয়ে এখবর জানিয়েছে মধ্যপ্রাচ্যবিষয়ক সংবাদমাধ্যম মিডল ইস্ট মনিটর।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সৌদি আরবে বিবাহ বিচ্ছেদের হার বেড়ে যাওয়ার পেছনে অনেক কারণ রয়েছে। পারিবার বিষেয়ে পরামর্শক মোহাম্মদ ধাইফুল্লাহ আল-কুরানি জানান, বিবাহ বিচ্ছেদের হার বেড়ে যাওয়ার কারণগুলোর মধ্যে রয়েছে বিয়ের অবমূল্যায়ন, সত্যিকার সম্পর্ক ও দায়িত্বের প্রতি অবহেলা এবং রাতে দেরি করে স্বামীর ঘরে ফেরা।

আল-কুরানি বলেন, নারীরা যখন কথা বলতে শুরু করল, যখন-তখন বাইরে যেতে ও আসতে পারছে, ঘর, স্বামী ও পারিবারিক দায়িত্ব বাদ দিয়ে মোবাইলে বেশি সময় ব্যয় করছে তখনই বিবাহ বিচ্ছেদের ঘটনা বাড়তে শুরু করে। এছাড়া দম্পতিদের ব্যক্তিগত জীবনে আত্মীয় ও আশেপাশের মানুষের প্রভাব ও হস্তক্ষেপেও বাড়ছে বিচ্ছেদের ঘটনা।

তবে আল-ইমাম মুহাম্মদ ইবনে সৌদ ইউনিভার্সিটির সামাজিক বিজ্ঞান ও সমাজ সেবা বিভাগের ফ্যাকাল্টি মেম্বার খালেদ আল-নাকিয়াহ সৌদি আরবে বিচ্ছেদের উচ্চ হারের কথা অস্বীকার করেছেন। তিনি বলেন, বিচ্ছেদের হার মোট বিয়ের মাত্র ২৯ থেকে ৩৫ শতাংশ। দম্পতিদের অপরিপক্কতা ও বিয়ের দায়িত্ব সম্পর্কে সচেতনতা ও তা পালনের জন্য জ্ঞানের অভাব এবং বুদ্ধিবৃত্তিক ভিন্নতার কারণে বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটছে।

বিবাহ বিচ্ছেদ এড়ানোর পরামর্শ দিয়ে আল-নাকিয়াহ বলেন, যারা বিয়ে করতে যাচ্ছেন তাদের জন্য সামাজিক সচেতনতা ও বিশেষ গাইড দরকার। উভয়ের মধ্যে সমঝোতা দরকার, জোর করে বিয়ে দেওয়া উচিত না এবং দম্পতিদের জীবনে পরিবারের হস্তক্ষেপ বন্ধ করতে হবে। আমাদের এটাও ভুলে গেলে চলবে না যে স্বামী বা স্ত্রীর একে অপরের প্রতি অবজ্ঞার কথা। বিশেষ করে সামাজিক মাধ্যম ব্যবহারের কারণে অনেক দম্পতির জীবনে সমস্যা তৈরি হচ্ছে এবং বিচ্ছেদে গড়াচ্ছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য