বীরগঞ্জে বিবাহের দাবিতে প্রেমিকের বাড়ীতে প্রেমিকার অনশনমোঃ আবেদ আলী, বীরগঞ্জ (দিনাজপুর) থেকেঃ বীরগঞ্জে বিবাহের দাবিতে প্রেমিকের বাড়ীতে প্রেমিকা দুই দিন ধরে অনশন শুরু করেছে।

উপজেলার শিবরামপুর ইউনিয়নের ভেলাপুকুর গ্রামের নুর ইসলাম জানান, তার মেয়ে ঠাকুরগাঁও সরকারী কলেজের (অনার্স পাশ) ছাত্রী নুর জাহান (১৯) বিবাহের দাবিতে প্রতিবেশী মরিচা ইউনিয়নের দিঘল পৌহুরা গ্রামের পিয়ার আলীর ছেলে কলেজ ছাত্র (টেক্সটাইল ইঞ্জিয়ার) মাসুদ রানার বাড়ীতে অবস্থান নেয়।

অবস্থার বেগতি দেখে পরিবারের লোকের প্রেমিককে মাসুদ রানাকে বাড়ী থেকে তাড়িয়ে দেয়। নুর জাহান বিবাহের দাবিতে দুই দিন ধরে অনশন করছে।

কলেজ ছাত্রী নুর জাহানের মা শেফালী খাতুন জানান, ২ বছর ধরে মাসুদ আমার মেয়ে নুর জাহানকে বিবাহের প্রলোভন দেখিয়ে প্রেমের সম্পর্ক স্থাপন করে। মাসুদ রানা গত ২৩ আগষ্ট বিকেলে ঠাকুরগাঁও ছাত্রী নিবাসে আমার মেয়ের সাথে দেখা করে অবৈধ ভাবে মেলামেশা করার সময় এলাকাবাসী আটক করে। অবস্থার বেগতি দেখে পরিবারের লোকের বল প্রয়োগ করে মাসুদ রানাকে ছিনিয়ে নিয়ে আসে।

পরিবারের লোকেরা মাসুদ রানাকে অন্যত্র বিবাহ দেওয়ার জন্য গোপনে মেয়ে ঠিকঠাক করে বিবাহের আয়োজনের সংবাদ পেয়ে নুর জাহান বিবাহের দাবিতে দুই দিন ধরে অনশন শুরু করছে। নুর জাহানের অনশন দেখতে দলে দলে মানুষ বাড়ীর ভিতরে ও বাড়ীর সামনে ভির করছে।

সংবাদ পেয়ে ২৬ আগষ্ট দুপুরে উপজেলা সদর থেকে ৩০ কিলোমিটার উত্তরে মরিচা ইউনিয়নের দিঘল পৌহুরা গ্রামের পিয়ার আলীর ছেলে মাসুদ রানার বাড়ীতে উপস্থিত হলে সাংবাদিকের উপস্থিতি বুঝতে পেরে কলেজ ছাত্রী নুর জাহানকে একটি ঘরে আটকে রেখে পরিবারের লোকেরা বাড়ী থেকে পালিয়ে যায়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য