জেক্স রিপোর্টঃ শ্রাবণ শেষ হয়ে গেছে, আজ ১৯ আগোষ্ট  ৪ঠা ভাদ্র। লোক কথা আছে ‘ভাদ্রমাসে তাল পাকে’ মানে ভাদ্র মাসে এত গরম পড়ে, যে গরমে তাল পেকে যায়। গত কয়েকদিন থেকে দিনাজপুরে আবহাওয়া প্রচন্ড গরম চলছে।

আন্তর্জাতিক আবহাওয়া ওয়েসাইট গুলোতে আজ ১৯ আগোষ্ট দিনাজপুরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৯ ডিগ্রী সে. রেকোর্ড করা হয়। বিভাগীয় আবহাওয়া অধিদপ্ত থেকে জানান হয়, আজ কালের মধ্যে ভারি বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে।

গত আষাঢ় শ্রাবণ মিলে দিনাজপুর জেলায় মোট ১০ দিন বৃষ্টিপাত হয়েছে। এর মধ্যে আষাঢ়ে আট দিন এবং সমস্ত শ্রাবন মাস জুড়ে মোটে দুই দিন বৃষ্টিপাত হয়েছে। বৃষ্টি না হওয়ার কারনে দিনাজপুরের প্রকৃতি উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে।

বৃষ্টি না হওয়া সম্পর্কে পরিবেশবিদ ড. সুমাইয়া জাকির দিনাজপুরনিউজকে জানান, উত্তর আঞ্চলের জমি আবাদের জন্য বেশ উপযুক্ত। তাই স্থানিয় জনসাধারন গাছপালা বন-জঙ্গল কেটে ফসলি জমি তৈরি করে, সেখানে চাষাবাদ করছে। বড় বড় গাছ কেটে ফেলার কারনে এই অঞ্চলের আবহাওয়ার উপর বিরুপ প্রভাব পড়ছে।
আজ দিনাজপুরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৯ ডিগ্রী সে.
শুধু স্থানিয় জনগন নয়, বিভিন্ন জেলা থেকে ভাসমান মানুষ এসে সরকারি বনাঞ্চল গুলোর গাছ কেটে ফসলি জমি তৈরি করে সেখানে চাষাবাদ করছে। পর্যাপ্ত লোকবল না থাকায় বনবিভাগ গাছ চুরি ও বন রক্ষায় হিমসিম খাচ্ছে।

যে অঞ্চলে গাছপালা থাকে না সে অঞ্চলে বৃষ্টিপাত তুলনা মূলক কম হয়। যার প্রভাব বর্তমানে উত্তরাঞ্চলে পড়ছে। গাছপালা লাগানোর ব্যবস্থা না করলে এর প্রভাব আরও প্রকট আকার ধারন করবে বলে তিনি দিনাজপুরনিউজকে জানান।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য