কামারদিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুরের কোরবানীর ঈদকে সামনে রেখে কামার পল্লিতে বেড়েছে ব্যস্ততা। পবিত্র ঈদুল আযাহা তথা কুরবানীর ঈদের আর মাত্র কয়েকদিন বাকি।

আসন্ন ঈদকে কেন্দ্র করে দিনাজপুরেরবালুবাড়ীসহ প্রত্যন্ত অঞ্চলের কামার পল্লীতে ইতি মধ্যে ব্যস্ত হয়ে পড়েছে। কর্মমুখর হয়ে উঠেছে জেলার কামার শালাগুলো।

এবারও দম ফেলার সময় নেই তাদের, ঈদুল আযাহাকে কেন্দ্র করে এখন ব্যস্ত আরো বেড়েগেছে। প্রবিন কামার টঙ্কনাথ জানান, ৪৫ বছর ধরে আমি কামার পেশায় কাজ করি, বিভিন্ন সময়ে কোরবানীর ঈদে শত শতগরু, খাসি, মহিশ ইত্যাদি পশু কোরবানী হয়ে থাকে।

এসব পশু জবাই থেকে শুরু করে রান্নার জন্য চুড়ান্ত কাজ পর্যন্ত দা-বটি, ছুরি-ছোড়া, চাপাতি ইত্যাদি ধাতব হাতিয়ার প্রয়োজন হয়।

ঈদের বিপুল চাহিদার যোগান দিতে হয় ১মাস আগে থেকেই যোগান দিতে হয়। একই ধরণের কথা বললেন কামার হেমন্ত রায়। তারা পুরোদমে কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন।

ঈদের আর কয়েকদিন বাকি থাকলেও ক্রেতাদের চাহিদা সর্বাহ করতে হিমসিম খেতে হচ্ছে। ঈদের আগপর্যন্ত ঠিক মতো নাওয়া খাওয়ার সময় পাওয়া যাচ্ছে না।

কাচা-পাকা লোহা দিয়ে তৈরী করা হয় দাতব যন্ত্রপাতি। পাকা লোহার দা-ছুড়ি সব সময় বেশী দামে বিক্রি হয়ে থাকে।

সংশ্লিষ্টরা জানান, দা-আক্রিতি ও লোহা ভেদে ৬০ থেকে ৫০০ টাকা, ছুড়ি ৪০ থেকে ৩৫০ টাকা, ছোড়া প্রতিটি ৮০ থেকে ১২০টাকা, চাপাতি ২০০ থেকে ৩৫০ টাকা, এবং ধার করার ইস্টিল প্রতিটি ৫০ থেকে ৬০ টাকা কেনা বেচা হচ্ছে। পুরোন যন্ত্র পাতি শানদিতে ১০০ থেকে ১৫০ টাকা পর্যন্ত নেওয়া হচ্ছে।

কামার পল্লীতে এ ব্যস্ততা ঈদের দিন পর্যন্ত চলবে বলে কামার শালার লোকজনেরা জানান।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য