কাহারোলের ঈশ্বর গ্রামের গুচ্ছ গ্রামে ঠাঁই পাওয়ায় ভূমিহীন পরিবারের মধ্যে আনন্দের বন্যাকাহারোল (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ কাহারোলে ভূমিহীন ৫০টি পরিবার ঠাই পেয়েছে নব-নির্মিত ঈশ্বর গ্রাম এর গুচ্ছগ্রামে। দিনাজপুরের কাহারোল উপজেলা সদর থেকে ১১ কিলোমিটার পূর্ব ও দক্ষিনে রামচন্দ্রপুর ইউনিয়নে অবস্থিত ঈশ্বর গ্রাম। সেই গ্রামে নতুন করে নির্মান করা হয়েছে গুচ্ছগ্রাম। আর এই গুচ্ছগ্রামের মধ্যে ঠাঁই পেয়েছে অত্র ইউনিয়নের ৫০টি ভূমিহীন পরিবার।

জানা যায়, প্রায় ৭৫ লক্ষ টাকা ব্যয় সাপেক্ষে কাহারোল উপজেলার রামচন্দ্রপুর ইউনিয়নে ঈশ্বর গ্রামে গুচ্ছ গ্রাম নির্মাণ কাজ ইতোমধ্যে সরকারী নিয়ম নীতি ও প্রাক্কলন অনুযায়ী সমাপ্ত করা হয়েছে বলে নির্ভর যোগ্য সূত্রে জানা যায়।

ভূমিহীনদের জন্য নির্মাণকৃত গুচ্ছগ্রামে গত ১৭ আগষ্ট শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে এক নজর সরেজমিনে ঘুরে দেখা ও জানা গেছে, দিনাজপুর জেলার কাহারোল উপজেলার ৬নং রামচন্দ্রপুর ইউনিয়নের ঈশ্বর গ্রাম মৌজায় ৫ একর ৫০ শতক জায়গা জুড়ে নির্মাণ করা হয়েছে গুচ্ছ গ্রামটি। চলতি বছরের ফেব্রুয়ারী মাস থেকে ঐ গুচ্ছ গ্রামের নির্মাণ কাজ শুরু করা হয়।

সরকারের ভূমি মন্ত্রণালয়ের ব্যবস্থাপনায়, সিভিআরপি প্রকল্পের আওতায় রামচন্দ্রপুর ইউনিয়নের ঈশ্বর গ্রাম গুচ্ছ গ্রাম নির্মাণ করা হয়েছে। তবে ঈশ্বর গ্রামের গুচ্ছ গ্রামের শত ভাগ কাজ প্রাক্কলন অনুযায়ী ইতোমধ্যে সমাপ্ত করা হয়েছে। প্রতিটি পরিবারের জন্য সরকারের ব্যয় হবে দেড় লক্ষ টাকার মত।

ভূমিহীনরা যেন মাছ চাষ করতে পারেন সেই জন্য ২ একর ৪৫ শতক জায়গা জুড়ে রয়েছে বিশাল আকৃতির একটি পুকুর। প্রতিটি পরিবারের জন্য বরাদ্দ রয়েছে ১টি করে টিনের ঘর, স্যানেটারী ল্যাট্রিন, বন্ধু চুলা(উন্নত চুলা), এ ছাড়াও ৬টি পরিবারের জন্য ১টি করে টিউবওয়েল স্থাপন করা হয়েছে গুচ্ছগ্রামে। এর পাশাপাশি রয়েছে ফুল ও ফলের গাছের চারা রোপন করার জন্য জায়গা রাখা হয়েছে।

এছাড়াও ভূমিহীন পরিবারকে স্বাবলম্বি করতে গড়ে তোলা হয়েছে ১টি সঞ্চয় সমিতি, বিনোদনের জন্য রয়েছে মাল্টিপারপাস হলরুম। সরকারি ভাবে রামচন্দ্রপুর ইউনিয়নে ঈশ্বর গ্রাম গুচ্ছ নির্মাণ করে ৫০টি ভূমিহীন পরিবার মাথা গোজাবার ঠাঁই পেয়েছে এবং ভূমিহীনদের মুখে হাঁসি ফুঁটে উঠেছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ নাসিম আহমেদ জানান , ঈশ্বর গ্রামের নব-নির্মিত গু”্ছগ্রাম নির্মান কাজ ইতো মধ্যে সুষ্ঠ ও প্রাক্কলন মোতাবেক সম্পূর্ণ করি এবং সেই গুচ্ছ গ্রামে বসবাসরত পরিবারগুলো সঠিক ভাবে ও মনোযোগ সহকারে গরু-ছাগল, হাঁস-মুরগী, মাছ চাষ করে সাবলম্বী হতে পারে সেই জন্য সর্বদায় আমার পক্ষ থেকে চেষ্টা অব্যাহত আছে এবং সরকারের পক্ষ থেকে ও সকল প্রকার সহযোগিতা অব্যাহত রয়েছে।

তিনি আরও জানান, এসব ভূমিহীন পরিবারগুলো দীর্ঘদিন ধরে রাস্তার ধারে সরকারী ও মালিকানাধীন পরিত্যাক্ত ভূমির উপরে অতি কষ্টে পরিবার পরিজন নিয়ে বসবাস করে আসছিল, তাদেরকে সরকার গুচ্ছগ্রামে সরকারি ভাবে পূর্ণবাসিত করার জন্য গুচ্ছগ্রাম প্রকল্প গ্রহণ করে ঘর তৈরী করে বসবাসের জন্য ব্যবস্থা গ্রহণ করেছেন।

যাতে তারা আর ঘর বা ভূমির জন্য এদিক-সেদিক ছোটাছুটি করতে না হয় তারই ব্যবস্থা করেছে বর্তমান সরকার। ভূমিহীনরা গুচ্ছগ্রামে মাথা গোজার ঠাঁই পাওয়ায় বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন। ৫০টি ভূমিহীনদের মধ্যে প্রশাসনের পক্ষ হতে জমির দলিল, নামজারি সহ যাবতীয় কাগজপত্রাদি আগামী কয়েক দিনের মধ্যে প্রদান করা হবে।

ঈশ্বর গ্রামের গুচ্ছ গ্রামে কয়েক জন সরকারী ঘর পাওয়া ভূমিহীন পরিবার জানান, আমরা পূর্বের চেয়ে বর্তমানে ভাল আছি গুচ্ছগ্রামের ঘরে বসবাস করে। তারা আরও জানান,আমরা জানি গুচ্ছগ্রামে সরকার শুধু ঘর নির্মাণ করে দিয়েছেন। কিন্তু ঘরের মেঝে পাকা না করার কারণে আমাদের বসবাসে অসুবিধা হওয়ায় ইউ,এন,ও স্যার নিজ উদ্দ্যোগে ঘরের মেঝে পাকা করার আশ্বাস প্রদান করায় আমাদের মনে তিনি দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন।

এদিকে রামচন্দ্রপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোঃ আতাউর রহমান বাবুল, প্রাক্কলন অনুযায়ী ঈশ্বর গ্রাম গুচ্ছ গ্রামে ভূমিহীনদের জন্য ঘর নির্মাণ কাজ সুষ্ট ভাবে শেষ করায় সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন পরিষদ ও সাধারন জনগনের পক্ষ হতে উপজেলা প্রশাসনের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য