সঙ্কটজনক অবস্থায় চিকিৎসাধীন ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারী বাজপেয়ি। অথচ ‘বাজপেয়ি প্রয়াত’ লিখে টুইট করেন ত্রিপুরার রাজ্যপাল ও সাবেক বিজেপি নেতা তথাগত রায়। পরে সংবাদ সত্য নয় জেনে দুঃখ প্রকাশ করে টুইট সরিয়ে নিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার দুপুরে টুইটারে তথাগত রায় লিখেছেন, ভারতের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারী বাজপেয়ি অত্যন্ত সুবক্তা ছিলেন। দীর্ঘ ৬ দশক সময়কাল ধরে ভারতীয় রাজনীতিতে উজ্জ্বল জ্যোতিষ্ক ছিলেন তিনি।

ড. শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের ব্যক্তিগত সচিব হিসেবে নিজের রাজনৈতিক জীবন শুরু করেছিলেন অটল বিহারী বাজপেয়ি। পরবর্তীতে নিজের বুদ্ধিমত্তা, ব্যক্তিত্ব ও পাণ্ডিত্যে ভারতীয় রাজনীতিতে নিজের স্বতন্ত্র জায়গা তৈরি করে নেন। তাঁর রসবোধও ছিল অসাধারণ।’

শুধু এটাই নয়। এরপর তথাগত রায় তাকে নিয়ে আরও ২টি টুইট করেন। যেখানে তিনি লিখেন, ‘একটা ঘটনার কথা মনে পড়ছে। সালটা ২০০১ কিংবা ২০০২। বিজেপির জাতীয় কর্মসমিতির বৈঠকে ভাষণ দেওয়ার কথা ছিল অটলজির। বৈঠকে তৎকালীন বিজেপি সভাপতি বেঙ্কাইয়া নাইডু একসময় আমাদের বলেন, মধ্যাহ্ণভোজে কিছুটা দেরি আছে। তাই এখন প্রধানমন্ত্রী বলবেন।’

এরপরই বক্তৃতা দিতে উঠে কৌতুক দিয়েই নিজের বক্তব্য শুরু করেছিলেন অটল বিহারী বাজপেয়ি। তিনি নাকি বলেছিলেন, ‘খাওয়ার দেরি আছে। তাই ততক্ষণ পর্যন্ত আমাকে ভাষণ দিয়ে কাটাতে হবে।’ বাজপেয়ির মুখে একথা শুনে হাসিতে ফেটে পড়েছিলেন বৈঠকে উপস্থিত সবাই। টুইট করে এমনটাই জানান তথাগত রায়।

যদিও এর খানিক পরই বাজপেয়ির সম্পর্কে ভুল খবর টুইট করার জন্য দুঃখপ্রকাশ করেন তথাগত রায়। নিজের ভুলস্বীকার করে ফের একটি টুইট করেন তিনি। জানান, একটি সর্বভারতীয় সংবাদ চ্যানেলের খবরের ভিত্তিতে তিনি বিভ্রান্ত হয়ে পড়েছিলেন। পরে জানতে পারেন, বাজপেয়ির শারীরিক অবস্থা সঙ্কটজনক। দুঃখপ্রকাশ করে এরপরই আগের টুইটগুলি ডিলিট করে দেন তথাগত রায়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য