ফুলবাড়ী সেবা না পেয়ে খোলা মাঠে সন্তান প্রসব, শাস্তির দাবিতে স্থানীয়দের বিক্ষোভস্টাফ রিপোর্টারঃ দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সেবা নিতে এসে, কোন সেবা না পেয়ে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভবনের সামনে একটি কামরাঙ্গা গাছের নিচে ঘাসের উপর জনসম্মুখে সন্তান প্রসব করার ঘটনায়, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর আবাসিক মেডিকেল অফিসার এর নেতৃত্বে দিনাজপুর সিভিল সার্জন ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) এর নেতৃত্বে দিনাজপুর জেলা প্রশাসক এর কার্য্যলয় থেকে পৃথক দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। প্রাথমিক তদন্তে তিনটি অপরাধ চিহ্নিত।

এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে আজ সোমবার বেলা সাড়ে ১১ টায়, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রংপুর বিভাগীয় পরিচালক ডাঃ মোস্তাফিজুর রহমান ঘটনা স্থল পরিদর্শন করেছেন। এদিকে দোষি নার্সদের সাস্তির দাবীতে বিক্ষোভ করেছেন স্থানীয় বাসীন্দা মহিলারা।

জেলা প্রশাসক গঠিত সহকারী কমিশনার (ভূমি) এনামুল হকের নেতৃত্বে তদন্ত কমিটির অন্য সদ্যরা হলেন, আবাসীক মেডিকেল অফিসার ডাঃ সঞ্জয় কুমার গুপ্ত ও উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ইসমাইল হোসেন। এবং সিভিল সার্জন গঠিত আবাসীক মেডিকেল অফিসার ডাঃ সঞ্জয় কুমার গুপ্তর নেতৃত্বে তদন্ত কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন, পরিবার পরিকল্পনা মেডিকেল অফিসার ডাঃ রইচ উদ্দিন ও মেডিকেল অফিসার ডাঃ মুহর্তেমা ফাতেমা। তদন্ত কমিটির আহবায়কদ্বয় বলেন, তিন কার্য্যদিবসের মধ্যে তারা তদন্ত,শেষে প্রতিবেদন জমা দিবেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ নুরুল ইসলাম বলেন, প্রাথমিক তদন্তে অভিযুক্ত নার্সদের তিনটি অপরাধ চিহ্নিত করা হয়েছে, অপরাধ গুলেঅ হলো (১) তারা প্রসুতি রোগীকে সর্তকতার সাথে সেবা দেয়নি, (২) রোগীর অবস্থা কি সে বিষয়ে কোন চিকিৎসকের সাথে পরামর্শ করেনি ও চিকিৎসকের সাথে পরামর্শ না করেই একটি বেসরকারী হাসপাতালে নেয়ার পরামর্শ দিয়েছে। যা চিকিৎসক ছাড়া তারা অন্য জায়গায় রোগীকে রেফার্ড করতে পারেনা। এছাড়া অনান্য আর কি অপরাধ করেছে তা নিয়ে আরো তদন্ত করা হচ্ছে বলে তিনি জানান।

উপজেলা স্বস্থ্র ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাৎ নুরুল ইসলাম আরো বলেন, ঘটনার সঙ্গে সঙ্গে সিভিল সার্জনের সাথে পরামর্শ করা হয়েছে, সিভিল সার্জনের পরামর্শে আবাসীক মেডিকেল অফিসার ডাঃ সঞ্জয় কুমার গুপ্তকে আহবায়ক করে তিন সদস্যর একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত কমিটির রিপোর্ট আসলেই অভিযুক্ত নার্সদের বিরুদ্দে শান্তিমুলক ব্যবস্থা নেয়া হবে। প্রাথমিক ভাবে তাদের বিরুদ্ধে শান্তিমুলক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে কিনা এই বিষয়ে জানতে চাইলে, তিনি কোন উত্তর না দিয়ে এড়িয়ে যান।

এই বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুস সালাম চৌধুরীর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ঘটনা স্থল পরিদর্শন করা হয়েছে, জেলা প্রশাসক এর পরামর্শে সহকারী কমিশনার ভূমি এনামুল হককে আহবায়ক করে তিন সদস্যর একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে, কমিটির তদন্ত প্রতিবেদন আসলে পরবর্তি ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

এদিকে ঘটনাকে কেন্দ্র করে ফুসে উঠেছে স্থানীয় এলাকাবাসীন্দারা,দোষি নার্সদের শান্তির দাবীতে স্থানীয় মহিলারা গতকাল সোমবার সকালে স্বাস্থ্য কমপে¬ক্স চত্তরে বিক্ষোভ করেছেন, বিক্ষোভ কারীরা বলেন, এই হাসপাতালে এটাই নতুন কোন ঘটনা নয়, চিকিৎসা নিতে এসে পদে পদে হয়রানী হচ্ছে সাধারন মানুষ। তারা ঘটনার বিবরন দিয়ে বলেন রোববার সকালে এই স্বাস্থ্য কমপে¬ক্সে যে ঘটনা ঘটেছে, তাতে সারাদেশের সকল মা জাতিকে অপমান করা হয়েছে। তারা আরো বলেন খোলা আকাশের নিচে জনসম্মুখে একজন মা সন্তাান প্রসব করেছে, এতেকরে প্রত্যক মা’র সম্মানহানী হয়েছে। এই দোষি নার্সদের বিচার না হলে তারা আরো কঠোর আন্দোলনে নামবেন বলে তারা হুসিয়ারী দিয়েছেন।

উল্লেখ্য ফুলবাড়ী উপজেলা পার্শবর্তি পার্বতীপুর উপজেলার হামিদপুর ইউনিয়নের বাঁশপুকুর গ্রামের বাসীন্দা রিক্সা চালক আবু তাহেরের স্ত্রীর রিনা বেগম (৩৩) প্রসব ব্যাথা শুরু হলে,গত রোববার (১২ আগষ্ট) ভোর সাড়ে ৫টায় ফুলবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপে¬ক্সে নিয়ে আসে। সেখানে কর্মরত নার্স ( সেবিকা) রোজিনা আক্তার ও আফরোজা খাতুন, প্রসব ব্যাথায় ছটফট করা আবু তাহেরের স্ত্রীকে স্বাস্থ্য কমপে¬ক্সে ভর্তি না করে, একটি বেসরকারী ক্লিনিকে নিয়ে যেতে বলেন, এবং স্বাস্থ্য কমপে¬ক্সের দ্বিতীয় তলা থেকে নামিয়ে দেন তারা। এ সময় রোগীর প্রসব বেদনা আরো তিব্র হলে স্বাস্থ্য্র কমপ্লেক্সের পাশের এক দোকান্দারের মা এগিয়ে আসলে তার সহযোগীতায় খোলা আকাশের নিচে এক কামরাঙ্গা গাছের নিচে ঘাসের উপর জনসম্মুখে একটি কন্যা শিশুর জন্ম দেয় আবু তাহেরের স্ত্রী। পরে স্থানীয় এলাকাবাসীর তোপের মুখে প্রসুতি মা ও তার বাচ্চাকে হাসপাতালের বেডে নেয়া হয়।

এই ঘটনা বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশ পেলে কতৃপক্ষের টনক নড়ে, শুরু হয় তদনমশ্ কমিটি গঠন ও পরবর্তির ব্যবস্থা।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য