দিনাজপুরের বাস টার্মিনালনিজস্ব প্রতিনিধিঃ কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ভোর ৬টা থেকে দিনাজপুর থেকে দূরপাল্লাসহ সব রুটে বাস চলাচল শুরু হয়েছিল। কিন্তু সাড়ে ৮টার পর থেকে আবারও বন্ধ করে দেওয়া হয়।

সোমবার (৬ আগস্ট) সকাল থেকে দিনাজপুর কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল থেকে দূরপাল্লাসহ জেলার সব রুটে বাস ও কোচ ছেড়ে যায়। হঠাৎ করে সকাল ৮টার পরে কর্মরত পরিবহন শ্রমিকরা বাস চলাচল বন্ধ করে দেয়।

দিনাজপুর মটোর মালিক সমিতির সাধারন সম্পাদক শাহেদ রিয়াজ চৌধুরী দিনাজপুর নিউজকে জানান, জামিন অযোগ্য নতুন ‘সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮’-এর কারনে আতঙ্কিত হয়ে কর্মরত শ্রমিকরা এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

তিনি জানান, আমাদের সমিতির অধীনে প্রতিটি গাড়ীর ফিটনেস রুটপার্মিট আপটুডেট আছে। আমাদের পরিবহন শ্রমিকদেরও বৈধ কাগজপত্র রয়েছে, যা আমরা নিয়োগ দেওয়ার সময় যাচাই কেরে দেখি।

কোন মালিক বা শ্রমিক ইচ্ছা কৃত দুর্ঘনটা ঘটায় না। কাউকে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দেওয়ার ব্যবসা আমরা করিনা। লক্ষ লক্ষ টাকার সম্পদ রাস্তায় চালিয়ে আমাদেরও অতঙ্কের মধ্যে থাকতে হয়। নতুন এই আইনের কারনে আমরা সকলে আতঙ্কিত।

তবে শ্রমিকদের সাথে আলোচনা না করে এই মুহুর্তে কোন মতামত দেওয়া যাচ্ছে না।

এদিকে বাস চলাচল না করায় গত কয়েকদিন ধরে স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীসহ সাধারণ জনগণকে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা, মোটরসাইকেলসহ বিভিন্ন যানবাহনে যাতায়াত করছে।

এদিকে পরিবহন বন্ধ থাকার কারনে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা গুলো যাত্রীদের কাছ থেকে বাড়তি ভাড়ায় আদায় করছে বলে জানা যায়।

দিনাজপুরে যাত্রীবাহি বাস চলাচল বন্ধ থাকায় যাত্রীরা চরম দূর্ভোগে পড়েছে।

 

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য