কুড়িগ্রামে ৩ জেএমবি গ্রেপ্তারআবারো কুড়িগ্রামের ঢুসমারা উপজেলার দুর্গম চরে অভিযান চালিছে বগুড়া জেলা ডিবি ইউনিট ও সেন্ট্রাল ইন্টেলিজেন্স পুলিশ। তাদের যৌথ অভিযানে এবারে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জেএমবির সামরিক শাখার ৩ সদস্যকে আটক করা হয়েছে। তাদের অভিযানে উদ্ধার করা হয়েছে পিস্তল গুলি ও বোমা তৈরীর সরঞ্জামাদী ।

শনিবার দুপুরে বগুড়া জেলা পুলিশ সদরে আয়োজিত পুলিশ সুপারের সম্মেলন কক্ষে এক প্রেস ব্রিফিং অনুষ্ঠানে এ তথ্য জানান পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভূঞা বিপিএম ।

গ্রেপ্তারকৃত জেএমবি সদস্যরা হলেন- কুড়িগ্রাম জেলা জেএমবির ইছাবার প্রধান তোফাজ্জল হোসেন ওরফে তোতা মিয়া (৩০), ঢুসমারা উপজেলার জেএমবির ইছাবা দায়িত্বশীল রফিকুল ইসলাম (৪০) ও জেএমবির দাওয়াহ সদস্য আব্দুল হামিদ (৬০)। পুলিশ সুপার জানান তারা ৩জনই জেলার ঢুসমারা উপজেলার বাসিন্দা।

প্রেস ব্রিফিং অনুষ্ঠনে পুলিশ সুপার বিস্তারিত জানিয়ে বলেন , গত ২৯ জুলাই আটক হওয়া ৪সশস্ত্র জেএমবি সদস্যেদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে পুলিশ সদর ও বগুড়া জেলা ডিবি ইউনিটের যৌথ অভিযান চালায় কুড়িগ্রামের দুর্গম চরে ।

এ সময় অভিযানে ১টি বিদেশি পিস্তল, ৪ রাউন্ড গুলি, দু’টি ম্যাগাজিন, এক কেজি বিস্ফোরক পাউডার ও আধা লিটার সালফিউরিক এসিড সহ তাদের হাতে নাতে গ্রেপ্তার করা হয়।

এ ঘটনায় গ্রেপ্তারকৃতদের বিরুদ্ধে অস্ত্র ও বিস্ফোরক আইনে মামলা দায়ের করে আটক ৩জঙ্গীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে ১০ দিনের রিমান্ড চাওয়া হচ্ছে এমনটি জানান বগুড়া জেলার কৃতি পুলিশ সুপার মুহা আলী আশরাফ ভূঞা বিপিএম।

উক্ত প্রেস ব্রিফিং আয়োজনে সর্বস্তরের প্রিন্ট ও ইলেঃ মিডয়াম্যান ছাড়াও আরো উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্তি পুলিশ সুপার আরিফুর রহমান মন্ডল, অতিরিক্তি পুলিশ সুপার (ডিএসবি) মকবুল হোসেন, অতিরিক্তি পুলিশ সুপার আব্দুল জলিল, অতিরিক্তি পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল)সনাতন চক্রবর্তী, জেলা গোয়েন্দা পুলিশ(বিবি)এর অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নূর-এ আলম সিদ্দিকী প্রমুখ ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য