ঠাকুরগাঁওয়ে একই পরিবারে ৪ জন মানসিক রোগীমা-বাবার মৃত্যুর পর ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈলে একই পরিবারে ৪ জন মানসিক রোগী হওয়ায় বিষয়টি ভাবিয়ে তুলেছে এলাকাবাসিকে।

জানা যায়, উপজেলার শিয়াল ডাঙ্গী গ্রামে মৃত মফিজুল ইসলামের ৫ পুত্র সন্তানের মধ্যে ৪ জন মানসিক (পাগল) রোগী অবস্থায় বাড়িতে রয়েছে।

ছোট সন্তান সফিকুল ইসলাম বলেন, বাবার মৃত্যুর পর মা ছিল তাদের একমাত্র অভিভাবক, সন্তানদের দুশ্চিন্তায় ২০১৩ সালে মা মারা যায়।

ভাইদের মধ্যে ১২ বছর পূর্বে ২য় ভাই কামাল উদ্দীন এরপর ৪র্থ ভাই হাবিবুর, ৩য় ভাই জামাল উদ্দীন, বড় ভাই বেলাল মানসিক রোগে আক্রান্ত হয়।

তারা বিভিন্ন সময় বিভিন্ন রকমের প্রলাপ বকছে। কখনো বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যাচ্ছে, খাওয়া দাওয়ার কোন ঠিক ঠিকানা নেই। তবে বেশির ভাগ সময় তারা বারান্দায় দাঁড়িয়ে থাকছে।

এ সংসারের আমি সবচেয়ে ছোট তার পরও মানসিক ভারসাম্যহীন রোগী ভাইদের নিয়ে হিমশিম খেতে হচ্ছে আমাকে। তাদের জন্য রান্নাবান্না করা আবার সংসারের আয় রোজগার করা আমার পক্ষে অসম্ভব হয়ে দাঁড়িয়েছে। এছাড়া আমাদের বাড়িতে প্রতিবেশি লোকজন তেমন যাতায়াত করে না।

এ প্রসঙ্গে সমাজসেবা কর্মকতা রফিকুল ইসলাম বলেন, বিষয়টি আমি শুনে ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম তাদের চিকিৎসা বিষয়ে খোঁজ খবর নেওয়া হবে।

স্বাস্থ্য পঃপঃ কর্মকর্তা ডাঃ রফিকুল ইসলাম বলেন, একই পরিবারে যেহেতু ৪ জন মানসিক রোগী এটি পারিবারিক ভাবে কোন আঘাতের কারনে হতে পারে কিংবা বংশগত কারনে ও হতে পারে।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা মৌসুমী আফরিদার সাথে যোগাযোগ করা হলে তাকে পাওয়া যায়নি। তবে জেলা প্রশাসক আক্তারুজ্জামান বলেন বিষয়টি সমাজ সেবা অধিদপ্তরের মাধ্যমে সঠিক ঠিকানা নিয়ে তাদের চিকিৎসার ব্যাবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য