ইন্দোনেশিয়ায় ভূমিকম্পে নিহত ১৪ইন্দোনেশিয়ার জনপ্রিয় পর্যটন কেন্দ্র লোম্বকে ভূমিকম্পে অন্তত ১৪ জনের মৃত্যুর খবর দিয়েছে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম।

বিবিসি জানিয়েছে, রোববার স্থানীয় সময় সকাল ৭টার আগে রিখটার স্কেলে ৬ দশমিক ৪ মাত্রার এই ভূমিকম্প হয়। এতে আরো ১৬২ মানুষ আহত হয়েছে এবং কয়েক হাজার ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

বালির ৪০ কিলোমিটার পূর্বে লোম্বক পর্যটকদের কাছে দারুণ জনপ্রিয়। ভূমিকম্পে সেখানে বহু ভবন ধসে পড়েছে। আহতদের হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

মার্কিন ভূ-তাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা ইউএসজিএস বলছে, এ ভূমিকম্পের উপকেন্দ্র ছিল মাতারাম শহরের ৫০ কিলোমিটার উত্তরপূর্বে।

টুইটারে দেওয়া এক পোস্টে ইন্দোনেশিয়ার দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সংস্থার মুখপাত্র লিখেছেন, ভবনধসের বিপদ এড়াতে মানুষ রাস্তা ও খালি মাঠে জড়ো হচ্ছে। ঝুঁকিপূর্ণ স্থাপনাগুলো থেকে বাসিন্দাদের সরিয়ে নিচ্ছেন উদ্ধারকর্মীরা।

ইন্দোনেশিয়ায় ভূমিকম্পে নিহত ১৪স্থানীয় এক বাসিন্দাকে উদ্ধৃত করে বিবিসি লিখেছে, “ভূমিকম্প শুরুর পর আমার বাড়ির সবাই আতঙ্কিত হয়ে পড়ে, আমরা দৌড়ে বাইরে চলে আসি। প্রতিবেশীরাও বাইরে বেরিয়ে আসেন। আর তখনই হঠাৎ করে বিদ্যুৎ চলে যায়।”

রিং অব ফায়ারের মধ্যে অবস্থিত ইন্দোনেশিয়ায় প্রায়ই ভূমিকম্প ও অগ্ন্যুৎপাত দেখা যায়।

সমুদ্রপৃষ্ঠের ওপরে থাকা সক্রিয় আগ্নেয়গিরিগুলোর অর্ধেকেরও বেশি প্রশান্ত মহাসাগরজুড়ে বিস্তৃত ওই রিং অব ফায়ারের মধ্যে অবস্থিত।

দুই বছর আগেও ইন্দোনেশিয়ার সুমাত্রা দ্বীপে ৬ দশমিক ৫ মাত্রার ভূমিকম্পে কয়েক ডজন মানুষের মৃত্যু হয়, ৪০ হাজারের বেশি মানুষ ঘরবাড়ি হারান।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য