জাহ্নবীবলিউডে মুক্তি পেয়েছে জাহ্নবী কপুর ও ঈশান খট্টর-এর অভিনীত সিনেমা ‘ধড়ক’। বলিউডের বরেণ্য অভিনেত্রী প্রয়াত শ্রীদেবীর মেয়ে জাহ্নবী কপুরের এটাই প্রথম ছবি। তবে অভিনেত্রী হওয়ার বিষয়ে মায়ের (প্রয়াত শ্রীদেবী) খুব একটা সম্মতি ছিল না বলে জানিয়েছেন জাহ্নবী।

অভিনয় নিয়ে তিনি বলেন, অভিনয়ে আমার তো খুবই ইচ্ছে ছিল। মা (প্রয়াত শ্রীদেবী) কোনোদিন আপত্তি জানাননি, তবে মায়ের খুব একটা সম্মতিও ছিল না। লস এঞ্জেলসে ফিল্মের একটা কোর্স করতে গিয়েছিলাম। সেখানে গিয়ে উপলব্ধি করি, অভিনয় করা ছাড়া আর কোনোদিন কিছু করতে পারব না। তবে মা সব সময় বলতেন, ভালো অভিনেতা হওয়ার আগে একজন ভালো মানুষ হও।

মাকে নিয়ে জাহ্নবী আরও বলেন, মায়ের খুব ইচ্ছে ছিল আমরা সবাই মিলে তিরুপতি যাই। সময় থাকলে সেটা করব। মাকে এই সময়ে খুব মিস করছি। মা আমার ছবির কিছু অংশ এডিট হওয়ার পর দেখেছিলেন। অনেক পরামর্শও দিয়েছিলেন, কিছু অভিনয় সংক্রান্ত, কিছু আমার ব্যক্তিত্ব নিয়ে।

ছোটবেলা থেকেই অভিনয়ের জগৎ তাকে খুব টানতো বলেও জানান জাহ্নবী। ভারতের উনিশ কুড়ির পত্রিকার এ সাক্ষাতকারে তিনি আরও বলেন, প্রথাগত শিক্ষা একদম ভালো লাগত না, হাতে-কলমে লেখাপড়ায় বেশি মজা পেতাম। ছোটবেলায় না বুঝেই অনেক মিথ্যে বলতাম। একবার স্কুলে গিয়ে বলেছিলাম, আমাকে নাচ শেখাতে বাড়িতে শাকিরা আসেন! মাকে ফোন করে এ বিষয়ে জিজ্ঞাসাও করা হয়েছিল। অভিনয়ের জগৎ আমাকে বরাবরই খুব টানতো।

‘ধড়ক’ ছবি নিয়ে তিনি বলেন, ছবিটির শুটিং শুরু হওয়ার ছ’মাস আগে থেকেই আমরা জয়পুর এবং উদয়পুরে গিয়ে থাকতে শুরু করি। স্থানীয় লোকজনদের সঙ্গে কথা বলতাম। মেওয়াড়ি ভাষা শিখেছি। সেটে প্রথমদিন থেকেই চিত্রনাট্য এবং সংলাপ নিয়ে কোনো জড়তা ছিল না। প্রথম টেকেই শট ওকে হয়ে যায়। ‘ধড়ক’-এর ট্রেলার যেদিন মুক্তি পেয়েছিল সেদিন খুশিতে আমি কেঁদে ফেলেছি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য