08 18 18

শনিবার, ১৮ই আগস্ট, ২০১৮ ইং | ৩রা ভাদ্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ৬ই জিলহজ্জ, ১৪৩৯ হিজরী

Home - রংপুর বিভাগ - কুড়িগ্রামে উপ-নির্বাচন উপলক্ষে নির্বাচন কমিশনারের মতবিনিময় সভা

কুড়িগ্রামে উপ-নির্বাচন উপলক্ষে নির্বাচন কমিশনারের মতবিনিময় সভা

কুড়িগ্রামে উপ-নির্বাচন উপলক্ষে নির্বাচন কমিশনারের মতবিনিময় সভাকুড়িগ্রাম-৩ শূন্য আসনের উপ-নির্বাচন উপলক্ষে জেলা পর্যায়ে মতবিনিময়সভা শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় জেলা প্রশাসন সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নির্বাচন কমিশনার রফিকুল ইসলাম। কুড়িগ্রামের জেলা প্রশাসক সুলতানা পারভীনের
সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন নির্বাচন কমিশন সচিব হেলালুদ্দিন আহমদ, রংপুর অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (রাজস্ব) আনওয়ার হোসেন, রংপুর ভারপ্রাপ্ত উপ- মহাপুলিশ পরিদর্শক বশির আহম্মদ পিপিএম (বার), পুলিশ সুপার মেহেদুল করিম,রংপুর আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং অফিসর জিএম সাহাতাব উদ্দিন প্রমুখ।

মতবিনিময় সভায় কুড়িগ্রাম-৩ উলিপুর আসনের উপ-নির্বাচনে আওয়ামীলীগ প্রার্থী এমএ মতিন ও জাতীয় পার্টির প্রার্থী ডা: আক্কাছ আলী সরকার পরষ্পরের বিরুদ্ধে হামলা ও পাল্টা হামলার অভিযোগ করেন।

এসময় জাতীয় পার্টির প্রার্থী ডা: আক্কাছ আলী সরকার অভিযোগ করে বলেন, তার নির্বাচনী প্রচারণায় আওয়ামীলীগ সমর্থকরা বাঁধা প্রদান করছে। তারা উপজেলা জাপা কার্যালয় এবং তার গাড়িবহরে হামলা ও ভাঙচুর করে। এসময় বেশ কয়েকজন নেতা-কর্মী আহত হন বলে অভিযোগ করা হয়।

এছাড়াও নির্বাচনী পরিবেশ অনুকুল না থাকায় তিনি নির্বাচন বর্জনের হুমকী দেন।

অপরদিকে আওয়ামীলীগ প্রার্থী এমএ মতিন অভিযোগ করেন, জাপা প্রার্থী বহিরাগত লোকজন এনে নির্বাচনী এলাকায় আতংক সৃষ্টি করেছেন। তার কর্মীর উপর হামলা, পোস্টার ছেঁড়া, জোড় করে কর্মীকে জাতীয় পার্টির পক্ষে কাজ করানোর জন্য চাপ সৃষ্টি করা এবং সাধারণ ভোটারদের অর্থের বিনিময়ে ভোট কেনার অভিযোগ করেন তিনি। এনিয়ে মামলা করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

এছাড়াও বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় জাতীয় পার্টির সমর্থকরা তার ছেলের উপর হামলা করে। এসময় তিনজন আহত হয়। আহতদের মধ্যে দুজন উলিপুর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

এসময় নির্বাচন কমিশনার রফিকুল ইসলাম জানান, পরিবেশ যদি উত্তপ্ত হয়ে যায় তাহলে প্রশাসন, নির্বাচন কমিশন এবং আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী সেখানে কাজ করবে। ভোটের সুষ্ঠু পরিবেশ তৈরীতে সব ধরণের চেষ্টা নেয়া হবে। মানুষ যাতে নিরাপদে ভোট দিতে পারে আমরা সেই ব্যবস্থা গ্রহন করবো।

মতবিনিময় সভায় প্রশাসনের লোকজন ছাড়াও সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন। সেখানে দুই প্রার্থী আচড়ন বিধি লংঘন বিষয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেন। নির্বাচন কমিশনার এসময় সাংবাদিকদের বলেন সাধারণ মানুষের মধ্যে সুষ্ঠু নির্বাচন বিষয়ে যে নেতিবাচক ধারণা রয়েছে আমরা তা পাল্টাতে চাই।

নির্বাচন কমিশন যে কোন মূল্যে সুষ্ঠু নির্বাচনী পরিবেশ ফিরিয়ে আনবে। প্রতিটি মানুষ স্বাধীনভাবে তার নিজস্ব ভোটাধিকার প্রয়োগ করবে।