ট্রাম্পপারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণের জন্য উত্তর কোরিয়াকে কোন সময়সীমা বেঁধে দেওয়া হয়নি বলে মন্তব্য করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনি আরো জানিয়েছেন,পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণের জন্য কোন তাড়াহুড়ো নেই। খবর বিবিসির।

খবরে বলা হয়, এতদিন ধরে উত্তর কোরিয়াকে পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণ নিয়ে বেশ চাপে রেখেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। এমনকি উত্তর কোরীয় নেতা কিম জং উনের সঙ্গে বৈঠক শেষে তিনি বলেছিলেন, এই নিরস্ত্রীকরণ প্রক্রিয়া খুব দ্রুতই শুরু হবে।

কিন্তু সম্প্রতি এই বিষয়ে পুনরায় স্বর পাল্টেছেন ট্রাম্প। তিনি বলেছেন, কিম জং-উনের সঙ্গে তার চুক্তি অনুযায়ী দেশটির নিরস্ত্রীকরণে কোন তাড়াহুড়ো নেই। যদিও এর আগে তিনি বলেছিলেন, পিয়ংইয়ংকে নিরস্ত্রীকরণ প্রক্রিয়া খুব দ্রুতই শুরু করতে হবে।

ট্রাম্প মঙ্গলবার সাংবাদিকদের বলেন, উত্তর কোরিয়ার নিরস্ত্রীকরণের বিষয় নিয়ে আলোচনা চলছে এবং তারা অত্যন্ত ভালভাবে এগিয়ে যাচ্ছে।

বার্তা সংস্থা এএফপি ট্রাম্পকে উদ্ধৃত করে জানায়, নিরস্ত্রীকরণের ক্ষেত্রে আমাদের কোন সময়সীমা নেই। আমাদের কোন তাড়াহুড়ো নেই।

কিমের সঙ্গে চুক্তিতে আদতেই নিরস্ত্রীকরণের জন্য সময়সীমার কথা উল্লেখ করা হয়নি। তবে আলোচনা শেষে হওয়ার এক মাসেরও বেশি সময় অতিক্রম করলেও এ বিষয়ে উত্তর কোরিয়ার পক্ষ থেকে তেমন কোন অগ্রগতি লক্ষ্য করা যায়নি। বরঞ্চ এক মার্কিন গোয়েন্দা প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে, উত্তর কোরিয়া ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণ বৃদ্ধি করেছে।

এমতাবস্থায় ট্রাম্প জানান, তিনি সোমবার হেলসিনকিতে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে বৈঠকে উত্তর কোরিয়াকে নিয়ে আলোচনা করেছেন।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, প্রেসিডেন্ট পুতিন উত্তর কোরিয়ার নিরস্ত্রীকরণ সংক্রান্ত আলোচনায় যুক্ত হতে যাচ্ছেন। এই অর্থে তিনি আমাদের সাথেই রয়েছেন।

রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট গত ১২ জুন সিঙ্গাপুরে কিমের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। ওই সাক্ষাতে উত্তর কোরিয়ার নেতা এ উপদ্বীপকে পরমাণু অস্ত্রমুক্ত করার প্রতিশ্রুতি দেন। ওই সম্মেলনের একদিন পর মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও বলেন, উত্তর কোরিয়ার নিরস্ত্রীকরণের কাজ সম্পূর্ণভাবে শেষ করতে ট্রাম্পের পুরো মেয়াদ লাগতে পারে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য