দিনাজপুর সংবাদাতাঃ ১৬ জুলাই সোমবার সকালে সেন্ট ফ্রান্সিস্ জেভিয়ার স্কুলের তিন দিন ব্যাপী “পারস্পারিক যোগাযোগ ও সহযোগীতা শিক্ষার্থী উন্নয়নের চাবিকাঠি” এই সুরকে সামনে রেখে অভিভাবক সভার সমাপণী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে।এই অভিভাবক সভাটি তিনটি পর্বে অনুষ্ঠিত হয়।

১ম পর্ব ১৪ জুলাই শনিবার প্লে শ্রেণি থেকে দ্বিতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থীর অভিভাবকদের নিয়ে অনুষ্ঠিত এই সভায় শিক্ষকদের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন প্রতিষ্ঠানের সহকারী শিক্ষক সরলা পেরেরা।

২য় পর্ব ১৫ জুলাই রবিবার ৩য় শ্রেণি থেকে ৫ম শ্রেণির শিক্ষির্থীদের নিয়ে অভিভাবক সভায় অতিথিদের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন অভিভাবক সদস্য মোঃ আব্দুল হামিদ সরকার, শিক্ষকদের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন সহকারী শিক্ষক সুমা রাণী সরকার।

৩য় পর্ব ১৬ জুলাই সোমবার সমাপণী অভিভাবক সভাটি ৬ষ্ঠ হতে ১০ শ্রেণির শিক্ষার্থীর অভিভাবকদের সম্মনয়ে অনুষ্ঠিত সভায় প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক সিষ্টার বীণা রোজারিও সিআইসি এর সভাপত্বিতে শিক্ষকদের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন সহকারী শিক্ষক শারমিন আক্তার।

অন্যান্য আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পরিচালনা পর্ষদের সদস্য নাজমুস সাদাত, সাবেক শিক্ষার্থী ও পরিচালনা পর্ষদের সদস্য আসাদুজ্জামান সাগর, ফটো সাংবাদিক মো: নুর ইসলাম প্রমুখ।

প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক সিস্টার বীণা রোজারিও সিআইসি , অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে বলেন তিনদিন ব্যাপী যে অভিভাবকটি অনুষ্ঠিত হয়েছে এটির মুল সুর ছিল “পারস্পারিক যোগাযোগ ও সহযোগীতা শিক্ষার্থী উন্নয়নের চাবিকাঠি” এই বাক্যটির অর্থ আপনার আমার সকলের আন্তরিকতা ও সহযোগীতার মাধ্যমে একটি শিক্ষার্থীকে সুদক্ষ ও সুনাগরিক ভাবে তৈরী করার জন্য যে অস্ত্র ব্যবহার করা হবে সেটি হচ্ছে একে অপরের সম্পর্ক।

তাই শিক্ষকদের সাথে অভিভাবকদের যোগাযোগ অব্যাহত রেখে শিক্ষার্থীদের শিক্ষার মান উন্নয়নের জন্য যে সকল দিক নিদের্শনার প্রয়োজন সে সকল পরামর্শ অভিভাবকদের কাছ থেকে আশা করছি।

তিন দিন ব্যাপী অভিভাবক সভার সমাপণী বক্তব্য রাখেন প্রতিষ্ঠানের সহকারী প্রধান শিক্ষক সিস্টার পিরিনা দাস, সিআইসি। এ সকল অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সহকারী শিক্ষক অবিনাস দাস, সুচন্দা সরকার , লাবণ্য আরা ও নাসিমুল হোসেন সবুজ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য