আদালতের নির্দেশে কবর থেকে তোলা হলো শিশুর লাশআজিজুল ইসলাম বারী, লালমনিরহাট প্রতিনিধি: লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলায় আদালতের নির্দেশে মৃত্যুর সাড়ে ৩ মাস পর কবর থেকে মোহিদ হোসেন(৫) নামে এক শিশুর লাশ উত্তোলন করেছে পুলিশ।

সোমবার(১৬ জুলাই) দুপুর ২টার দিকে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবু সাঈদের উপস্থিতিতে উপজেলার কাকিনা ইউনিয়নের জেলে পাড়ার একটি কবর থেকে শিশু মোহিদের লাশ উত্তোলন করা হয়।

জানা গেছে, ৪ এপ্রিল ২০১৮ বুধবার বিকেলে শিশু মোহিদের বাবা অনেক খুঁজাখুজি করলে তাকে ওহেদ আলীর পুকুরে ভেসে থাকতে দেখে চিৎকার করে মোহিদের বাবা আলমঙ্গীর হোসেন। পরে স্থানীয়রা শিশু মোহিদের মরদেহ উদ্ধার করে রাতেই লাশটি দাফন করে।

বেশ কয়কদিন পরে মোহিদের মা শাহেরা আক্তার ময়না তার সৎ মা মিস ডালিয়া বেগমের আচরন দেখতে পেয়ে মোহিদের বাবা আলঙ্গীর হোসেন জানায় তালাক প্রাপ্ত স্ত্রী মিস ডালিয়া বেগম পূর্বের শত্রু তার কারণে তার ছেলে মোহিদকে হত্যা করতে পারে। মিস ডালিয়া বেগমকে মোহিদের বাবা আলমঙ্গীর হোসেন সন্দহে করতে শুরু করে।

বেশ কয়কদিন পর ২০ এপ্রিল কাকিনা ইউনিয়নের চেয়ারম্যানসহ মিস ডালিয়াকে জিজ্ঞাসা করা হলে মিস ডালিয়া বেগম কথা না বলেই চলে যেতে ধরলে তাকে আটক করে আবারও জিজ্ঞাসা করলে সে স্বীকার করে বিস্কুটের সাথে ওষুধ দিয়ে সৎ ছেলে মোহিদকে হত্যা করে পুকুরে ফেলে দিয়েছে।

পরে আলমঙ্গীর ইসলামের তালাক প্রাপ্ত স্ত্রীর নামে লালমনিরহাট আদালতে একটি হত্যা মামলা করলে প্রায় ১ মাস পরে মোহিদের হত্যাকারী সৎ মাকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই বাদল জানান, আদালতের নির্দেশে সোমবার দুপুরে ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতিতে মোহিদের লাশ কবর থেকে উত্তোলন করে ময়নাতদন্তের জন্য লালমনিরহাট মর্গে পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য