বিরামপুরে বৃষ্টিব অভাবে আমন চাষ ব্যহতবিরামপুর(দিনাজপুর) সংবাদদাতাঃ দিনাজপুর জেলার বিরামপুরে বর্ষামৌসুমে বৃষ্টি না হওয়ায় মাঠের জল শুকিয়ে গেছে। ইংরাজি ১৪ জুলাই বাংলা মাসের আষাঢ়ের ৩০ হলেও বিরামপুরে একদফা বৃষ্টির পরে আর বৃষ্টির দেখা নেই।

এখন এখানকার জমিগুলোতে ধুলা উড়ছে। উপজেলার কৃষকরা উচুঁ ও মাঝাড়ি উচুঁ জমিতে আষাঢ় মাসের শেষ সপ্তাহ নাগাদ আমন চারা রোপণ করে থাকে। কারণ আগাম আমন ধান কেটে কৃষকরা উক্ত জমিতে আলু ও ভৃট্টার চাষ করে বাড়তি সফল ঘরে তুলে থাকেন। চলতি মৌসুমে মাঠে জল না থাকায় কৃষকরা জলের আশায় আকাশ পানে চেয়ে প্রহর গুনছেন। কখন মেঘ জমে নামবে কাক্ষিত বৃষ্টি।

উপজেলার কাটলা ইউনিয়নের দক্ষিণ দাউদপুরের কৃষক খায়রুল আনাম, মনির হোসেন, সোহরাফ হোসেন, উত্তর দাউদপুরের মিজানুর রহমান কাজী, সাইফুল ইসলাম বাচ্চু দক্ষিণ রামচন্দ্রপুরের আলম, চৌঘরিয়রর সুলতান মাহমুদ, দামদরপুরের সামসুলসহ আরো অনেকেই জানিয়েছেন, আমরা মাঝারী ও উচুঁ ভিটা জমিতে আষাঢ়ের শেষ সপ্তাহের মধ্যেই আমন ধানের চারা রোপন করে থাকি।

যা কার্তিকের শেষ সপ্তাহের দিকে জমি আলু ও ভুট্টা চাষের আওতায় আনতে পারি। চলতি বছরে সেটা আর হলনা বলে তাঁরা দুঃখ প্রকাশ করেছেন।

বিরামপুর উপজেলা কৃষি কর্মমর্তা নিকছন চন্দ্র পাল জানিয়েছেন, বর্ষামৌসুমে আকাশের ঘনবর্ষণই আমন চাষের ঠিক সময়। আবহাওয়া অনুকূলে না থাকায় চলতি মৌসুমে কৃষকরা যাতে মনোবল না হারিয়ে ফেলেন সেই জন্য তিনি তাঁদের আশ্বস্ব্য করেছেন।

তিনি আরো জানান, অত্র উপজেলা ১৭ হাজার ৪’শ ৯৪ হেক্টর জমিতে আমন চাষের লক্ষমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। এসব জমিতে বিরি ৩৪, ৫২, ৫১, গুটিস্বর্ণা,স্বর্ণা ৫, হাইব্রীড, কাটারি,স্বম্পা কাটারী ও পায়জাম জাতের ধান চাষ হবে ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য