সত্তর দশকের জনপ্রিয় গানের দল বনি এম এখন ঢাকায়সত্তর দশকের জনপ্রিয় গানের দল বনি এম এখন ঢাকায়। আজ বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা ৪০ মিনিটে এমিরেটস এয়ারলাইনসের বিমানে করে বনি এম সদস্যরা রাজধানীতে পৌঁছান। আয়োজক প্রতিষ্ঠান ক্রেইন্সের কর্মকর্তারা বিমানবন্দরে কয়েক প্রজন্ম মাতানো এই গানের দলকে ফুল দিয়ে স্বাগত জানান। বনি এম সদস্যদের ঢাকায় পৌঁছার বিষয়টি প্রথম আলোকে নিশ্চিত করেছেন ক্রেইন্সের প্রধান পরিচালন কর্মকর্তা কাজী ফয়সাল আহমেদ।

পূর্বনির্ধারিত শিডিউল অনুযায়ী আগামীকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় ঢাকার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রের হল অব ফেম মিলনায়তন তৈরি মঞ্চে গাইবে বনি এম। এক ঘণ্টার বেশি সময় ধরে এদের পরিবেশনা চলবে বলে জানান ফয়সাল আহমেদ।

ফয়সাল আহমেদ বলেন, ঢাকায় নেমেই অতিথিরা এখানকার আবহাওয়ার খবর জানতে চেয়েছেন।

ফয়সাল আহমেদ জানান, লিজ মিশেল বাংলাদেশে তাঁদের গানের দলের ভক্তকুল আছে জেনে খুশি হয়েছেন। মিশেল আশ্বস্ত করেছেন, এখানকার ভক্তরা তাঁদের পরিবেশনা ভালোবাসবে।

সত্তর দশকের আলোড়ন তোলা বনি এমের গাওয়া অনেক গান এখনো অনেক তরুণ মনে আনন্দের ঝড় তোলে। ‘ড্যাডি কুল’, ‘বাই দ্য রিভার্স অব ব্যাবিলন’ ও ‘ব্রাউন গার্ল ইন দ্য রিং’-এর মতো গানগুলো দিয়ে বিশ্বের গানপ্রেমীদের মাঝে আলোড়ন তোলে বনি এম। নিজেদের ঝুলিতে ভরে নেয় যুক্তরাষ্ট্রের একাডেমি অব রেকর্ডিং আর্টস অ্যান্ড সায়েন্স কর্তৃক প্রবর্তিত বার্ষিক পুরস্কার গ্র্যামি অ্যাওয়ার্ড, যা সংগীতশিল্পে অসাধারণ কৃতিত্বের প্রদান করা হয়।

চলতি বছরের মে মাসে ক্রেইন্স থেকে আভাস দেওয়া হয়েছিল, বাংলাদেশের গানপ্রেমী বন্ধুদের জন্য শিগগিরই দারুণ একটা আয়োজন করতে যাচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি। জুলাই মাসের শুরুতে এসে জানা যায়, সেই চমক আর কিছু নয়, বনি এম সদস্যদের ঢাকায় আগমন। ক্রেইন্স এর আগে আরও কয়েকজন বিদেশি শিল্পী ও গানের দলকে বাংলাদেশে এনেছে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলেন ব্রায়ান অ্যাডামস, মাইকেল লার্নস টু রক, জুলিয়ান মার্লে, গানস অ্যান্ড রোজেস, আশা ভোঁসলে ও রিচার্ড মার্কস।

ফয়সাল আহমেদ বলেন, ‘প্রতিবছর আমরা আন্তর্জাতিক অঙ্গনের পরিচিত কোনো শিল্পী বা গানের দলকে ঢাকায় এনেছি। সেই ধারাবাহিকতায় এবার বনি এমকে আমন্ত্রণ জানানো হয়। তারা এতে সাড়া দেয়। একসময়ের জনপ্রিয় এই গানের দল কিন্তু এখনো বেশ সক্রিয়। গানপ্রেমী বাংলাদেশের শ্রোতারা সামনাসামনি বসে বনি এমের গান শুনতে পারবেন। সবার জন্য দারুণ একটা অভিজ্ঞতা হবে।’

অনুষ্ঠানের নিরাপত্তা নিয়ে ক্রেইন্সের এই কর্মকর্তা বলেন, ‘এ পর্যন্ত যতগুলো আয়োজন আমরা করেছি, সব সময়ই নিরাপত্তাকে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিয়েছি। এবারও তেমনভাবে প্রস্তুতি নিচ্ছি। আমরা সর্বাত্মক চেষ্টা করে যাচ্ছি গানপ্রেমীদের একটি সুন্দর সন্ধ্যা উপহার দেওয়ার।’

বনি এম ফিচারিং লিজ মিশেল লাইভ ইন ঢাকা কনসার্টে অংশ নিতে হলে কাটতে হবে টিকিট। পাওয়া যাবে বিএফসির আউটলেটে, ওয়েস্টিন হোটেলের লবিতে, কফি বিন অ্যান্ড টি-লিফ রেস্তোরাঁয়। অনলাইনে বাগডুম ও যেতে চাই নামের ওয়েবসাইটেও পাওয়া যাবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য