জাপানে বন্যায় মৃত প্রায় ২০০, তীব্র গরমে খাবার পানির সঙ্কটজাপানে গত প্রায় চার দশকের মধ্যে সবচেয়ে বিপর্যয়কর প্রাকৃতিক দুর্যোগে মৃতের সংখ্যা ২০০-র কাছাকাছি পৌঁছে গেছে।

বৃহস্পতিবার বন্যা কবলিত পশ্চিম জাপানে তীব্র গরমের মধ্যে খাবার পানির সংকট দেখা দেওয়ায় রোগের প্রাদুর্ভাব ছড়িয়ে পড়ার শঙ্কা দেখা দিয়েছে, জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

প্রবল বৃষ্টিপাতে সৃষ্ট বন্যা ও ভূমিধস পাহাড়ের ঢালে ও প্লাবন ভূমিতে গড়ে তোলা কয়েক দশকের পুরনো আবাসিক এলাকাগুলোতে বহু ধ্বংসের চিহ্ন রেখে রেখে গেছে। এখন পশ্চিম জাপানের দুই লাখেরও বেশি বাড়িতে খাওয়ার বা ব্যবহার করার মতো কোনো পানি নেই।

মৃতের সংখ্যা ১৯৫ জনে দাঁড়িয়েছে, আরও বহু মানুষ এখনও নিখোঁজ রয়েছেন বলে বৃহস্পতিবার জানিয়েছে দেশটির সরকার।

প্রতিদিন তাপমাত্রা ৩০ সেলসিয়াসের উপরে থাকার পাশাপাশি আর্দ্রতা বেশি হওয়ায় স্কুলের ব্যায়ামাগার ও অন্যান্য আশ্রয়কেন্দ্রগুলোতে থাকা পরিবারগুলোর জীবন অসহনীয় হয়ে উঠেছে।

পানি সরবরাহ সীমিত হওয়ায় তীব্র গরমের মধ্যে প্রয়োজনীয় তরল গ্রহণ করতে না পারায় এসব মানুষ হিটস্ট্রোকে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকিতে আছেন বলে জানিয়েছ কর্তৃপক্ষ। সরবরাহ করা পানি অপ্রতুল হওয়ায় মানুষ হাতের কাছে যে পানি পাচ্ছে তাই ব্যবহার করছে, এতে প্রাদুর্ভাব ছড়িয়ে পড়ায় শঙ্কা তৈরি হয়েছে।

এক ব্যক্তি এনএইচকে টেলিভিশনকে বলেছেন, “পানি না থাকায় আমরা কোনো কিছুই পরিষ্কার করতে পারছি না, কোনো কিছু ধুতেও পারছি না।”

সরকার দুর্যোগপূর্ণ এলাকাগুলোতে পানিবাহী ট্রাক পাঠালেও প্রয়োজনের তুলনায় তা অপ্রতুল।

নিখোঁজদের খোঁজে ৭০ হাজারেরও বেশি সৈন্য, পুলিশ ও দমকল কর্মী ধ্বংসস্তূপের মধ্যে বিরামহীন তল্লাশি চালিয়ে যাচ্ছে। অনেক এলাকা পুরু কাদার নিচে চাপা পড়ে আছে এবং ওই কাদা থেকে নর্দমার গন্ধ আসতে থাকায় তীব্র গরমের মধ্যে তল্লাশি অব্যাহত রাখা কঠিন হয়ে উঠেছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য