08 18 18

শনিবার, ১৮ই আগস্ট, ২০১৮ ইং | ৩রা ভাদ্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ৬ই জিলহজ্জ, ১৪৩৯ হিজরী

Home - জেনে রাখুন - অ্যালকোহলযুক্ত আফটার সেভ লোশন কতটুকু ক্ষতিকর

অ্যালকোহলযুক্ত আফটার সেভ লোশন কতটুকু ক্ষতিকর

শেভিংয়ের পর আফটারশেভ গালে লাগানোর কাজটি কিন্তু কমবেশি প্রতিটি ছেলেই করেন। তবে বাংলাদেশের ছেলেরা অ্যালকোহল বেসড আফটারশেভই ব্যবহার করেন বেশি। কিন্তু এই কাজটির ফলে যে তাদের ত্বকের ক্ষতি হয়ে যাচ্ছে তারা ঘুণাক্ষরেও টের পাচ্ছেন না। ক্ষতির দায়টি হলো এই অ্যালকোহলের।

আফটারশেভের মূল উপাদান দুইটি। একটি হলো স্পিরিট বা অ্যালকোহল। অপরটি হলো ভারি, পুরুষালী একটি সুগন্ধি। এই স্পিরিট বা অ্যালকোহল কাজ করে অ্যাসট্রিনজেন্ট হিসেবে। শেভের পর এটি ব্যবহারে ত্বকে একটা ঠাণ্ডা জ্বলুনির ভাব আসে এবং ত্বক টানটান মনে হয়।

এ ছাড়া সুগন্ধি থাকায় অনেকে এটাকে পারফিউমের বদলে ব্যবহার করে থাকেন। তবে আফটারশেভের যে কাজটিকে মার্কেটিং করার সময়ে বেশি প্রাধান্য দেওয়া হয় তা হলো এর জীবাণুনাশক কাজ। শেভের সময়ে ছোট-খাটো কাটাকুটি থেকে যেন ইনফেকশন না হয় তার জন্যই বেশিরভাগ পুরুষ আফটারশেভ ব্যবহার করে থাকেন। কিন্তু এই আফটারশেভ আসলে ত্বকের উপকারের বদলে ক্ষতি করতে সক্ষম।

অ্যালকোহল আসলে আমাদের ত্বক শুষ্ক করে দেয়। এর পাশাপাশি এতে যে সুগন্ধ থাকে, সেটাও ত্বকে ব্যবহারের জন্য ভালো নয়। বিশেষ করে শেভিংয়ের পর আমাদের ত্বক থেকে প্রাকৃতিক তেল চলে যায়। এ সময়ে এই আফটারশেভ ব্যবহার আসলে ত্বকের জন্য ক্ষতিকরই।

অ্যালকোহলের মতো একটি উপাদান ত্বকে ব্যবহার করলে ত্বকের কাঁটাছেঁড়া থেকে ইনফেকশন হবার সম্ভাবনা কমে যায় সত্যি। কিন্তু এটাও ঠিক যে ত্বক অনেকটা শুষ্ক হয়ে যায়।

কিন্তু এখন কথা হলো, আফটারশেভ কি তাহলে একেবারেই ব্যবহার করা যাবে না? যাবে অবশ্যই। তবে আপনার ত্বক যদি সংবেদনশীল হয়ে থাকে তবে অ্যালকোহল-বেসড আফটারশেভ ব্যবহারে ত্বক ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। এক্ষেত্রে ময়েশ্চারাইজিং আফটারশেভ ব্যবহার করুণ। এগুলো ব্যবহারে ত্বকে ঠাণ্ডা জ্বলুনির অনুভূতি আসবে না ঠিকই। কিন্তু শেভ করার সময়ে ত্বক থেকে যে আর্দ্রতাটা চলে যায়, তা আবার ফিরে আসবে। এ ছাড়া এগুলোতেও সুগন্ধি থাকে তাই পারফিউমের প্রয়োজন হবে না।

কিছু কিছু আফটারশেভে এসেনশিয়াল অয়েল ব্যবহার করা হয়। যেমন টি ট্রি অয়েল। এগুলো অ্যাসট্রিনজেন্ট হিসেবে কার্যকর। এর পাশাপাশি ময়েশ্চারাইজার হিসেবে থাকতে পারে গ্লিসারিন বা অলিভ অয়েল। ত্বককে আরাম দেবার জন্য থাকতে পারে অ্যালো ভেরার নির্যাস।

আফটারশেভ কেনার সময়ে এসব উপাদান দেখে কিনলে আপনি বুঝতে পারবেন এগুলো ত্বকের জন্য আরামদায়ক। যদিও উপাদানের মাঝে বিভিন্ন অ্যালকোহল, আর্টিফিশিয়াল কালার এগুলো থাকতে পারে। এ ছাড়া কিছু কিছু ক্ষেত্রে পারফিউমটাও আপনার জন্য ক্ষতিকর হতে পারে। তাই বুঝেশুনে কিনুন। এ ছাড়াও বাড়িতে অ্যালোভেরা জেল অথবা অ্যাপেল সাইডার ভিনেগার ব্যবহার করে দেখতে পারেন আফটারশেভের বদলে।