Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!
09 24 18

সোমবার, ২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৯ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ১৩ই মুহাররম, ১৪৪০ হিজরী

Home - বিনোদন - বিয়ে সারলেন মিঠুন পুত্র

বিয়ে সারলেন মিঠুন পুত্র

ভারতের খ্যাতিমান অভিনেতা মিঠুন চক্রবর্তীর ছেলে মহাক্ষয় চক্রবর্তী ওরফে মিমো বেশ কিছুদিন ধরে সংবাদ শিরোনামে রয়েছেন। সম্প্রতি তার বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ করেছেন ভোজপুরি সিনেমার এক নায়িকা।

App DinajpurNews Gif

এ ছাড়া মিমোর মা যোগিতা বালির বিরুদ্ধে ছেলের ধর্ষণের ঘটনা ধামা-চাপা দেওয়ার অভিযোগ ওঠে। এ ঘটনায় মিমো আর তার মাকে গ্রেফতারের নির্দেশ দেয় আদালত। ৭ জুলাই ওই ধর্ষণ ও প্রতারণার মামলায় মিঠুনের স্ত্রী যোগিতা বালি ও ছেলে মিমোর আগাম জামিন মঞ্জুর করে দিল্লির একটি আদালত।

এদিকে পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী ৭ জুলাই, তামিলনাড়ুর নীলগিরি জেলায় মিঠুনের বিলাসবহুল হোটেলই মিমোর সঙ্গে মদালসা শর্মার বিয়ে হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু এদিন মিমোর বিরুদ্ধে ধর্ষণ ও প্রতারণার অভি‌যোগ তদন্তে পুলিশ চলে আসে সেই হোটেলে। আর পুলিশ তদন্তে আসার কারণে বিয়ে বাতিল হয়ে গেছে বলে খবর ছড়ায়।

একটি ইংরেজি দৈনিকের বরাতে এবিপি আনন্দ জানায়, মিমোর বিয়ে সেদিন বাতিল হয়নি। সেদিনই রেজিস্ট্রি করা হয়েছে। ১০ জুলাই, মঙ্গলবার বিয়ের অনুষ্ঠান হওয়ার কথা। এদিকে গতকাল সোমবার তার সংগীত অনুষ্ঠান হয়েছে বলেও পরিবার সূত্রে জানা গেছে।

এ বিষয়ে অভিযোগকারীনীর আইনজীবী জানান, তার মক্কেলের ওপর শারীরিক নির্যাতন করা হয়েছে। তারপরও দোষীরা বিচারব্যবস্থার ফাঁক দিয়ে বেরিয়ে গেলেন। এটি গ্রহণযোগ্য নয়।

এর আগে দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের খবরে জানানো হয়, নায়িকার সঙ্গে প্রতারণা ও ধর্ষণ এবং তাকে গর্ভপাতে বাধ্য করানোর অভিযোগে ২ জুলাই, সোমবার মিমোর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করতে শহর পুলিশকে নির্দেশ দেয় দিল্লির একটি আদালত। ধর্ষণের পর ওই নায়িকাকে হুমকি দেওয়ার অভিযোগ আনা হয়েছে মিমোর মা যোগিতা বালির বিরুদ্ধে।

আদেশে আদালতের অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম একতা গৌবা জানান, মামলার বিবাদীরা বিখ্যাত ও বর্ষীয়ান অভিনেতা মিঠুন চক্রবর্তীর ছেলে ও স্ত্রী। মিঠুন শুধু বলিউডের সুপারস্টারই নন, তিনি রাজ্যসভার সাবেক এমপিও। এই বিষয়গুলো আমলে নেওয়া হয়েছে।

বিচারক জানান, অভিযোগকারী মৌখিকভাবে জানিয়েছেন, তার মা-বাবা জীবিত নেই। দিল্লিতে তার কিছু আত্মীয় ও বন্ধু-বান্ধব রয়েছে। মিমো ও তার মায়ের কারণে তিনি মুম্বাইয়ে স্বাধীনভাবে চলাফেরা ও জীবনের নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন।