আগে থেকেই বিয়ের দিনক্ষণ ঠিক ছিল মিঠুনপুত্র মহাক্ষয় মিমোর। এমন সময় হঠাৎ করে ধর্ষণ এবং অবৈধ গর্ভপাত মামলায় ফেঁসে যান মিমো ও তার মা যোগিতা বালি।

তবে মামলার জন্য যেন বিয়েটা ভেস্তে না যায় সে জন্য গত বৃহস্পতিবার বোম্বের আদালতে উকিল মারফত জামিন আবেদন করেছিল চক্রবর্তী পরিবার।

জামিন নামঞ্জুর করে দেয় আদালত। ৭ জুলাই মা-ছেলে দিল্লির আদালত থেকে জামিন নেন। গ্রেপ্তারের শঙ্কা কেটে যাওয়ায় তামিলনাড়ুর উটির এক অভিজাত হোটেলে বিয়ের আয়োজন চলতে থাকে। পুলিশ এসে বিয়ে ভেঙে দেয়।

বিয়ের আসরেই মিমোকে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ। বিয়ের দিনে এমন অনাকাক্সিক্ষত ঘটনা ঘটে যাওয়া বিষয়টি মেনে নিতে পারেননি কনে মাদালসা শর্মা। তিনি কেন? কোনো মেয়েই এমন পরিস্থিতিতে বিয়ে করতে চাইবেন না।

তাই বিয়ে করতে আপত্তি জানান তিনি। বিয়ের আসর থেকে বেরিয়ে চলে যায় কনেপক্ষ। হবু বরের সঙ্গে বিয়ে ভেঙে যাওয়া কনে মাদালসা শর্মা বলেন, ধর্ষণের অভিযোগ থাকার পরও আমি রাজি ছিলাম মিমোকে বিয়ে করতে।

তার প্রতি আমার সম্পূর্ণ আস্থা রয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদ করা হলেও মহাক্ষয় মিমোকে গ্রেপ্তার করা হয়নি। ঘটনার অধিকতর তদন্ত চলছে বলে জানিয়েছে দিল্লির পুলিশ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য