এনটিভিতে প্রচার হবে জাহিদ হাসান অভিনীত নতুন ধারাবাহিক নাটক ‘মিস্টার টেনশন’। নাটকটি প্রতি সপ্তাহের বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার রাত ৮টা ২০ মিনিটে প্রচার হবে। আদিবাসী মিজান ও জাকির হোসেন উজ্জ্বলের যৌথ রচনায় নাটকটি পরিচালনা করেছেন আদিবাসী মিজান।

জাহিদ হাসান ছাড়াও ধারাবাহিকটিতে অভিনয় করেছেন শখ, ফজলুর রহমান বাবু, সুমাইয়া শিমু, নাদিয়া, মৌসুমী হামিদ, সাদিয়া জাহান প্রভা, শামীমা নাজনীন, দিলারা জামান, আরফান আহমেদ, মারজুক রাসেল, ড. এনামূল হক, জোভান, এ্যানি খান, তাসনুভা এলভিন প্রমূখ।

মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান একজন শিক্ষিত মানুষ। দীর্ঘ দশ বছর দুবাই থেকে এসেছেন তিনি। টাকা-পয়সার কোন কমতি নেই। ইচ্ছে করলেই আধুনিক শহরে আরাম আয়েশে জীবন যাপন করতে পারেন তিনি। কারণ, তার ভাই-বোন সবাই শহরেই থাকেন। কিন্তু হাবিবুর রহমান গ্রামে থাকতেই বেশি পছন্দ করেন।

গ্রামের সবাই তাকে বাঘের মতো ভয় পায়, কারণ নানান যুক্তি দিয়ে মানুষের মধ্যে টেনশন দিয়ে তিনি এক অদ্ভুত আনন্দ পান। তাই গ্রামের সবাই তার নাম দিয়েছে মিস্টার টেনশন। তাকে দেখলেই গ্রামের লোকজন পাশ কাটিয়ে অন্য রাস্তা ধরে। ঘরে থেকেও না থাকার কথা বলে। কোন প্রেমেই তার এক মাসের বেশি স্থায়ী হয়না।

তবে, এসব নিয়ে মিস্টার টেনশনের কোন টেনশন নেই। তার টেনশন একটাই, কীভাবে মানুষের মনে টেনশন ঢোকানো যায়। গ্রাম ছেড়ে একবার ঢাকায় বড় বোনের বাড়িতে চলে আসে মিস্টার টেনশন। বড় বোন আগেভাগেই তার স্বামী, ছেলে-মেয়েকে ভাইয়ের ব্যাপারে সতর্ক করে দেয়।

কিন্তু তাতেও কাজ হয়না। হাবিবুর রহমান নানান কৌশলে টেনশন ঢুকিয়ে দেয় তার বড় বোনের মনেই। এভাবে বিভিন্ন শহর, গ্রাম, জনপদে চলে টেনশনের ফেরিওয়ালা মিস্টার টেনশনের এই সফর। এভাবেই বাড়তে থাকে টেনশন।—এমন গল্পে নির্মিত হয় ধারাবাহিকটি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য