বিরামপুর (দিনাজপুর) সংবাদাতাঃ দিনাজপুর জেলার ফুলবাড়ী উপজেলার বেতদীঘি ইউনিয়নের দলদলিয়া গ্রামে একটি অসহায় বিধোবা পরিবার প্রতিবেশী প্রভাবশালীদের নিষ্ঠুরতায় পরিবার পরিজন নিয়ে বর্ষা মৌসুমে খোলা আকাশের নিচে মানবেতর ভাবে জীবন যাপন করছে। ওই প্রভাবশালী মহলের প্রধান মৃত: আয়েজ উদ্দিনের ছেলেরা ও তাদের ভাড়াটিয়া লোকজন সন্ত্রাসী তান্ডব চালিয়ে মৃত:আব্দুর রউফ মন্ডলের স্ত্রী নাজনীন আকতারের শয়ন ঘরের টিনের ও খড়ের চালা ভেঙ্গে দিয়ে ঘরের মালামাল তছনছ করে তাদের বাড়ী ছাড়ার জন্য এক তান্ডব চালালে বিধোবার বড় ছেলে নোমান আরাফাত বাদী হয়ে ফুলবাড়ী থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।

বাদী ও তার পরিবার সূত্রে জানা যায়, ৩০ জুন শনিবার সকালে বিবাদী পক্ষ জাকারিয়া মন্ডল তার তিন ছেলেসহ ভাড়া করা লোকজন নিয়ে দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে সন্ত্রাসী কায়দায় প্রতিবেশী মৃত: আব্দুর রউফের স্ত্রী নাজনীন আকতারের বাড়ীতে হামলা চালায়। বিবাদী গণ একযোগে বাদীর দরজা ভেঙ্গে অনধীকারবসত ঘরে প্রবেশ করে নগদ এক লক্ষ টাকা ও ঘরের মুল্যবান জিনিসপত্র লুটপাটসহ আসবার পত্র ভাংচুর করে। এরপর ঘরের টিনের ও খড়ের চালা ভেঙ্গে বাদীর পরিবারের সকল সদস্যদের বাড়ী চাড়ার জন্য তান্ডব চালায় বলে জানিয়েছেন।

এ সময় এর সত্যতা জানতে বিবাদী জাকারিয়া মন্ডলের ছেলে জারজিস মন্ডলের নিকট জানতে চাইলে তিনি ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বাদীর বাড়ীর দলদলিয়া মৌজার ৩০৯ দাগের ৩৭ শতাংশ জমি তাদের নিজেদের। যা অনেক আগে তার দাদা আয়েজ উদ্দিন মন্ডল স্থানীয় দলদলিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দান করেছিলেন। সেই সূত্র ধরেই বাদীর বাড়ীর জায়গা এখন তাদের বলে তিনি দাবী করেন।

এ বিষয়ে বাদীর চাচা মৃত: শমশের মন্ডলের ছেলে ফরহাদ বাবু জানান, প্রায় ১’শ বছর ধরে তার বাবাসহ তারা সকলেই ওই বাড়ীতেই বসবাস করে আসছেন। কয়েক দিন আগে তিনি ওই বাসা তাঁর বিধোবা ভাবী নাজনীন আকতার কে ছেড়ে দিয়ে নতুন বাসায় উঠলে বিবাদী পক্ষরা স্কুলের জমি হিসেবে ঘটনার দিন এ ঘটনা ঘটিয়েছে।

দলদলিয়া সকরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আব্দুল আলিম জানান, আমি অত্র স্কুলে নতুন এসেছি। মাত্র দু’মাস হল।এ বিষয়ে তিনি কিছুই জানেন না বলে জানিয়েছেন।

ঘটনার বিষয়ে দলদলিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি মোঃ আব্দর রশিদ এর নিকট মোবাইল ফোনে জানতে চাইলে তিনি জানান, বিবাদকৃত জমিটি স্কুলেরই বটে। তবে দখলের বিষয়ে কমিটিতে কোন সিদ্ধান্ত হয়নি। আমরা এ বিষয়ে কিছুই জানিনা। বিবাদী জাকারিয়া মন্ডলরা প্রতিহিংসায় ঘটনাটি ঘটিয়েছেন।

এ বিষয়ে ফুলবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ নাসিম হাবীব ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, অভিযোগ হয়েছে। ঘটনার তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলে তিনি জানিয়েছেন।

উপজেলার বেতদীঘি ইউনিয়নের দলদলিয়া গ্রামে প্রভাবশালী জাকারিয়া মন্ডলদের নিষ্ঠুরতায় অসহায় বিধোবা নাজনীন আকতারের নগদ লক্ষ টাকা ও ঘরের আসবার পত্র লুটপাট এর বিষয়ে এলাকার সর্বস্থরের সচেতন মহল তদন্ত সাপেক্ষে দোষী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে আইননানুগ ব্যবস্থা গ্রহক করতে যথাযত কর্তৃপক্ষের প্রতি জোর দাবী জানিয়েছেন। সেই সাথে প্র্রতিবেশীদের নিষ্ঠুরতায় নাজনীন আকতার পরিবার পরিজন নিয়ে বর্ষা মৌসুমে খোলা আকাশের নিচে মানবেতর ভাবে জীবন যাপন করছেন বিষয়টি খতিয়ে দেখে আর্থিক সহায়তা প্রদানে স্থানীয় জন প্রতিনিধিসহ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার দৃষ্টি আর্কষণ করেছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য