লিবীয় উপকূল থেকে ৬০ শরণার্থী ও অভিবাসীকে উদ্ধার করার পর তাদের নিয়ে একটি নিরাপদ বন্দরের উদ্দেশ্যে যাত্রা করছে একটি স্প্যানিশ এনজিও’র উদ্ধারকারী জাহাজ। প্রথমে মাল্টা ও ইতালির কাছ থেকে প্রত্যাখ্যান হওয়ার পর স্পেনের দিকে যাত্রা করছে জাহাজটি। খবর আল জাজিরার।

স্প্যানিশ এনজিও প্রোএক্টিভা ওপেন আর্মস শনিবারে টুইটারে জানায়, বহু বাঁধা সত্ত্বেও, আমরা অদৃশ্য মানুষদের বেঁচে থাকার অধিকার রক্ষার চেষ্টা অব্যাহত রেখেছি। লিবিয়াতে তার যে অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হয়েছে সে গল্প আতঙ্কজনক।

এদিকে, স্পেনের দিকে যাত্রা করলেও এনজিও’র জাহাজটিকে সেখানে নোঙ্গর করতে দেওয়া হবে কি-না সে বিষয়ে নিশ্চিতভাবে কিছু জানা যায়নি।

প্রসঙ্গত, একদিন আগে লিবিয়ার নিকটে এক জাহাজডুবির ঘটনায় তিন শিশু নিহত হয়েছে ও ১০০ জন নিখোঁজ রয়েছে।

এছাড়া, সম্প্রতি ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের(ইইউ) নেতারা ইউরোপে অভিবাসী ও শরণার্থীদের প্রবেশ সীমিত করার উদ্দেশ্যে নতুন একটি চুক্তিতে সম্মত হয়েছে।

বিতর্কিত এই চুক্তি অনুসারে, ইইউ’র সদস্য দেশগুলোতে স্বেচ্ছাকৃতভাবে ‘নিয়ন্ত্রিত অভিবাসন’ কেন্দ্র স্থাপন করা হবে। সেখানে যোগ্য আশ্রয়প্রার্থীদের, যাচাই করা হবে।

এদিকে, প্রোএক্টিভা ওপেন আর্মসের উদ্ধারকাজের প্রতিক্রিয়ায় নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন মাল্টা ও ইতালির মন্ত্রীরা।

ইতালির অভিবাসন-বিরোধী স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মাত্তেও সালভেনি তার ফেসবুক একাউন্টে লিখেন, সবচেয়ে কাছের বন্দর হচ্ছে মাল্টা, আর (উদ্ধারকারী) সংগঠন ও পতাকা হচ্ছে স্পেনের; তারা ইতালির কোন বন্দরে আসার চিন্তা ভুলে যেতে পারে।

সালভেনির পোস্টের জবাবে মাল্টার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক্যাল ফারুগিয়া টুইটারে লিখেন যে, শরণার্থীদের উদ্ধার করা হয়েছে লিবিয়া ও ইতালীয় দ্বীপ ল্যাম্পেদুসার মাঝখানের অঞ্চলে।

ফারুগিয়া আরো লিখেন, মাল্টার দিকে আঙ্গুল তাক করে কোন কারণ ছাড়াই, ভুয়া তথ্য ছড়ানো বন্ধ করুন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য