সংবাদ সম্মেলনঃ নিরীহ বিষুপদ রায়ের ৫ একর ৯৩ শতক জমি প্রভাবশালী নেতাদের মদদপুষ্ট সন্ত্রাসী ভুমিদস্যুরা ক্ষমতার জোরে দখল করছে অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত।

বৃহস্পতিবার বিকেলে দিনাজপুর প্রেসক্লাব মিলনায়তনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে উপরোক্ত জমি দখলের অভিযোগ করেন বিরল উপজেলার ৯নং মঙ্গলপুর ইউনিয়নের হরিশচন্দ্রপুর গ্রামের মৃত খড়র্গ মোহন বর্মনের পুত্র বিষুপদ রায়।

তিনি লিখিত বক্তব্যে বলেন, গোবিন্দপুর মেহেরবাগ মৌজার ৬৭১২ নং দাগের খতিয়ান ২৩, ৫৬ এবং জেএল নং ৮৪’র মোট জমির পরিমান ৫ একর ৯৩ শতক জমি পৈত্রিক সুত্রে গত ৭০ বছর ধরে ভোগদখল করছেন।

হঠাৎ করেই গত কিছুদিন ধরে ক্ষমতাসীন দলের প্রভাবশালী নেতাদের মদদপুষ্ট সন্ত্রাসী ভুমিদস্যু হরিপদ,থিনেশ,ফাল্টু,নরেন,সুরেন,কুমোদ ও তাদের সঙ্গীয় সন্ত্রাসীরা উল্লেখিত জমিটি নিজেদের দাবী করে জোবরদখল করে নিয়েছে।

তারা ওই জমিতে থাকা আমার আবাদ করা ফসলাদী ধ্বংস করে বাড়িঘর নির্মান করেছে এবং গত ২৮ মে ২০১৮ তারিখে জমিটি তাদের মর্মে খারিজ আবেদন করলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তা নামঞ্জুর করেন।

তিনি সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের জানান জমিটির বিষয়ে ইতিমধ্যেই স্থানীয় এমপি খালিদ মাহমুদ চৌধুরীকে জানালে তিনি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে কাগজপত্র যাচাইয়ের জন্যে নির্দেশদেন। ইএনও যাচাই-বাচাই করে বিষুপদ রায়ের পক্ষে জাবেদা নকল প্রদান করেন।

পরবর্তীতে এমপি খালিদ মাহমুদ চৌধুরীর নির্দেশে গত ২৬ জুন ২০১৮ইং তারিখে বিরল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং জমিতে স্থিতিশীলতা বজায় রাখার নির্দেশ দেন কিন্তু ওসি’র নির্দেশ উপেক্ষা করে অদ্যাবদী ভুমিদস্যুরা জমিতে টিউবল স্থাপনসহ দখলীও নানান কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছে। তারা বলেন, এমপি মহোদয় জমি উদ্ধারের নির্দেশ দিলেও পুলিশ ভুমিদস্যুদের বিরুদ্ধে কোন পদক্ষেপ নিচ্ছেন না।

তিনি জমির প্রকৃত মালিক হিসেবে নিজের জমির দখলসহ মালিকানা ফিরিয়ে দিতে প্রশাসন ও স্থানীয় সংশ্লীষ্ট বিভাগের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সহযোগীতাসহ ভুমিদস্যু দখলদারদের গ্রেফতার এবং আইনের আওতায় নিয়ে কঠোর শাস্তির বিচার দাবী করেন। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিজয়,সুব্রত,মানিক,পূর্ণচন্দ্র রায় প্রমুখ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য