দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুর সদর উপজেলার পল্লী থেকে অপহরণের ৭২ দিন অতিবাহিত হলেও স্কুল ছাত্রী সোনালী রায় উদ্ধার হয়নি। এই ঘটনায় কোতয়ালী থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

দিনাজপুর কোতয়ালী থানার অফিসার্স ইনচার্জ রেদওয়ানুর রহিম জানান, সদর উপজেলার ১০নং কমলপুর ইউনিয়নের দক্ষিন ভবানীপুর গ্রামের কৃষক পুলিন চন্দ্র রায়ের কন্যা বড়গ্রাম উচ্চ বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণির ছাত্রী সোনালী রায় গত ১৪ এপ্রিল দুপুরে অপহরণ হয়।

অভিযোগ রয়েছে গত ১৪ এপ্রিল দুপুরে অপহৃত সোনালী রায় তার বড় বোন অসুস্থ রূপালী রায়কে দেখতে দিনাজপুর শহরের শাহানা ক্লিনিকে দেখতে আসে।

সেখান থেকে বাড়ী ফেরার পথে সদর উপজেলার সীমান্তবর্তী দক্ষিন সাদিপুর মাগুরমারী গ্রামের রাস্তা থেকে মাইক্রোবাস যোগে অপহরণকারীকে তাকে জোর করে তুলে নিয়ে যায়।

প্রতক্ষ্যদর্শীদের অভিযোগ অপহরণকারীদের মধ্যে সদর উপজেলার সাদিপুর গ্রামের জয়নালের পুত্র মোঃ রবিউল ইসলাম (২৫), দক্ষিন মহেষপুর গ্রামের রবিন চন্দ্র রায়ের পুত্র পঞ্চম রায় (২৪), দক্ষিন সাদিপুর গ্রামের মোঃ সেলিম (২৫)সহ অন্যান্যরা সহযোগীরা সোনালী রায়কে জোরপূর্বক সাদা মাইক্রোবাসে তুলে নিয়ে যায়।

অপহরণের পর আজ পর্যন্ত বিভিন্ন স্থানে খোঁজা খুঁজি করে তাকে না পেয়ে কৃষক পুলিন চন্দ্র তার কন্যাকে উদ্ধারের জন্য প্রশাসনের নিকট কন্যা উদ্ধারের আবেদন করছে।

পুলিশের সূত্রটি জানায়, এই ঘটনায় আসামীদের নাম উল্লেখ করে কোতয়ালী থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই নয়ন চন্দ্র রায় বলেন, অপহৃতাকে উদ্ধারের চেষ্টা চলছে। এব্যাপারে দেশের সকল থানায় হৈ চৈ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য