ভারী বর্ষণের কারণে ভারতের পশ্চিম উপকূলবর্তী শহর মুম্বাইয়ের জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে।

বৃষ্টির কারণে অনেক এলাকাতেই জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে।

আবহাওয়াজনিত কারণে শনিবার তিনটি বিমানের যাত্রা বাতিল হয়েছে। উঠা-নামায় দেরি হয়েছে ৩২টি ফ্লাইটের। স্থানীয় ট্রেনগুলো ১০ থেকে ১৫ মিনিট দেরিতে চলছে বলেও জানিয়েছে এনডিটিভি।

ভারতের আবহাওয়া বিভাগ মুম্বাইয়ে ভারী বর্ষণের ব্যাপারে শুক্রবারই সতর্ক করেছিল। পূর্বাভাসে উপকূলীয় রাজ্য কর্নাটক, গোয়া ও মহারাষ্ট্রের দক্ষিণেও তুমুল বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনার কথা বলা হয়েছে।

বৃষ্টির কারণে মুম্বাইয়ের অনেক এলাকাতেই পানি জমে গেছে। এবারের বর্ষণ এবং তার পরবর্তী পরিস্থিতি ২০০৫ সালের চেয়েও ভয়াবহ হতে পারে বলে শঙ্কা অনেক আবহাওয়াবিদের।

মুম্বাইয়ের শহর কর্তৃপক্ষ ব্রিহনুমান মিউনিসিপাল কর্পোরেশন দুর্যোগ মোকাবেলায় সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানিয়েছে। বন্যায় আশ্রয়কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহারের জন্য শহরের স্কুলগুলোকে প্রস্তুত রাখা হয়েছে। সব জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তার সাপ্তাহিক ছুটি বাতিল করা হয়েছে। জলাবদ্ধপ্রবণ এলাকাগুলোতে অপেক্ষমান রাখা হয়েছে নৌবাহিনীর বেশ কয়েকটি ইউনিটকেও।

জেলে এবং মাছ ধরার নৌকাগুলোকে সমুদ্রের বেশি গভীরে যাওয়ার ক্ষেত্রেও সতর্ক করা হয়েছে।

মানখারডের পারেল ও আন্ধেরি স্পোর্টস কমপ্লেক্সে ভারতের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বাহিনী এনডিআরএফের তিনটি ইউনিটতে মোতায়েন করা হয়েছে।

বৃষ্টির কারণে পিচ্ছিল সড়কে গাড়ি চালাতে সতর্ক থাকার কথা বলেছে মুম্বাই পুলিশ। বাসিন্দাদের ঘরে থাকতে এবং নিয়মিত আবহাওয়া বুলেটিন শুনে সিদ্ধান্ত নিতেও পরামর্শ দিয়েছে তারা।

“৮ জুন থেকে বৃষ্টির তীব্রতা বাড়ছে; ৯ জুন এটি আরও প্রকট হতে পারে। জনসাধারণকে এ সময়ের মধ্যে বাইরের কাজকর্ম বাতিল করে ঘরে অবস্থান এবং আবহাওয়ার দিকে নজর রাখার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে,” বিবৃতিতে বলেছে মুম্বাইয়ের আঞ্চলিক আবহাওয়া অধিদপ্তর।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য