দিনাজপুর সংবাদাতাঃ বীরগঞ্জে গবাদী পশুর বাদাম খেত খাওয়াকে কেন্দ্র করে দুই-পক্ষের সংঘর্ষে আহম্মেদ আলী নামে এক কৃষক নিহত এবং আহত হয়েছেন ৫জন।

গতকাল শুক্রবার দুপুর আড়াইটার দিকে বীরগঞ্জ উপজেলার শিবরামপুর ইউনিয়নের মুরারিপুর বাজারে পাশে আরাজি মিলনপুরে এই ঘটনা ঘটে।

নিহত আহম্মেদ আলী বীরগঞ্জ উপজেলার শিবরামপুর ইউনিয়নের আরাজি মিলনপুর গ্রামের মৃত তাহের আলী আকন্দের ছেলে।

আহতরা হলেন, বীরগঞ্জের শিবরামপুর ইউনিয়নের আরাজি মিলনপুর গ্রামের আহম্মেদ আলীর স্ত্রী মোছাঃ আমীরজান (৬০), ছেলে আব্দুর রহিম (৩৪), নাজিম উদ্দিন (২৮), মোহাম্মদ আলীর স্ত্রী মোছাঃ অবিরন(৪০), মোঃ হাবিবুর রহমানের ছেলে শাকিল ইসলাম (১৬)।
আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি রয়েছে।

বীরগঞ্জ থানার এসআই মোঃ সাইদুর রহমান জানান, আহম্মেদ আলী শুক্রবার দুপুর আড়াইটার দিকে বাড়ীর পাশে বাদাম ক্ষেতে গিয়ে দেখেন একই গ্রামের কুদ্দুস (৩৭) এর গরু বাদাম ক্ষেত খাচ্ছে। এ সময় তিনি গরুটি ধরে নিয়ে আসছিলেন। গরুর মালিক দেখতে পেয়ে গরু ধরে নিয়ে যেতে বাঁধা দেয়। এ নিয়ে উভয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায় হাতাহাতি শুরু হয়। এসময় কুদ্দুসের পরিবারের লোকজন দেখতে পেয়ে ছুটে এসে বৃদ্ধ কৃষক আহম্মেদ আলীকে লাঠি সোঠা দিয়ে বেদম প্রহার করে।

এতে ঘটনাস্থলেই আহম্মেদ আলী মারা যায়। এ খবর পেয়ে আহম্মেদ আলীর ছেলে মেয়ে এবং পরিবারের সদস্যরা ছুটে আসলে দুপক্ষের মধ্যে সংর্ঘষ শুরু হয়। এতে নারীসহ ৫ জন আহত হয়। আহতদেরকে উদ্ধার করে আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

বীরগঞ্জ থানার অফিসার্স ইনচার্জ শাকিলা পারভীন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি। ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য