দিনাজপুর সংবাদাতাঃ যত ঈদ কাছে আসছে দিনাজপুরের বিরলে জমে উঠতে শুরু করেছে ঈদের কেনাকাটা। এবার মেঘাটু, কারিনা, মনটেক্স, নাতাশা, প্লাজো, ফ্লোরটাচ, সাউথ কাতান, জর্জেট কাতান, ব্যানারসী শাড়ি- থ্রিপিস এবং পাঞ্জাবী ।

ক্রয় করতে তরুন তরুনীরা ভীড় করছে শোপিং মল ও সুপার মার্কেট গুলোতে। সকাল ১০টা থেকে গভীর রাত পর্যন্ত চলে কেনা বেচা। তবে একই নামে দেশী শাড়ী ও থ্রীপিস মধ্যবিত্ত ও নিম্নবিত্তদের মধ্যে ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। তবে গরম এর কারনে সুতীর কাপড়ের চাহিদা এবার বেশী।

ঈদুল ফিতর সামনে রেখে ঈদের কেনাকাটা শুরু হয়েছে। উঠতি বয়সের ছেলে মেয়েরা তাদের পছন্দের কাপড় কিনতে উপচে পড়া ভীড় শহরের গুলসান মার্কেট, লুৎফুননেছা টাওয়ার, বেগম প্লাজা, রহিম সুপার মার্কেট, জাবেদ সুপার মার্কেট এবং গ্রীন সুপার মার্কেট গুলোতে।

এবার ঈদে উচ্চবিত্ত গৃহবধূদের পছন্দের শাড়ী ৫ থেকে ৭ হাজার টাকা মূল্যের রাজশাহী সিল্ক, সাড়ে ৭ হাজার টাকায় সাউথ কাতান, ৬ হাজার টাকায় জর্জেট কাতান, ৭ হাজারে মোহিনী মোহন কাঞ্জিলাল শাড়ি গৃহবধূদের আর্কষ্ট করে তুলেছে। আবার একই নামে ২ থেকে ৪ হাজার টাকা মূল্যের শাড়ি মধ্য বিত্ত ও নি¤œ মধ্যবিত্তদের কাছে ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। তবে দেশী কাপড় ভারতী কাপড়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে জায়গা করে নিয়েছে।

এবার নাতাশা, বাহুবলী, মেঘাটু, ফ্লোর টার্চ, লেহেঙ্গা সবার নজর কেড়েছে। দাম হাতের নাগালে হওয়ায় ক্রেতারাও খুশী।

এবার ঈদে দিনাজপুরের বিরলে বিপনী বিতানগুলোতে বিদেশী কাপড়ের পাশাপাশি দেশী পোশাক গুলো উঠতি বয়সের তরুন তরুনীদের নজর কেড়েছে। দাম কিছুটা বেশী হলেও বেচাবিক্রি নিয়ে খুশী বিক্রেতারা।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য