রংপুরে পরকীয়ার জের ধরে স্বামীকে খুন করার এক বছর পর স্ত্রী ও প্রেমিকেকে গ্রেপ্তার করেছে পিবিআই (পুলিশ বুরো অব ইনভেস্টিগেশন)।

বুধাবার রাতে হত্যার সাথে সম্পৃক্ত থাকার অভিযোগে আসামী মোজাম্মেল ডাল্লু (৫২)কে গাজীপুর জেলার টঙ্গী এলাকা এবং নিহতের স্ত্রী নাছিমা বেগম(৩৫)কে বদরগঞ্জের বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। থানা পুলিশের তদন্তকালে রংপুর পিবিআই মামলাটি স্ব-উদ্যেগে তদন্তভার গ্রহণ করে এই হত্যারহস্য উন্মোচন করেন।

পিবিআই সূত্রে জানাগেছে, গত বছরের ৩ জুলাই বদরগঞ্জ উপজেলার বুড়ির পুকুর হাট পূর্বপাড় ঐলাকার মৃত সোলেমান আলীর পুত্র মুনছুর আলী গেল্লু (৩৭) নিখোঁজ হয়।

এর দুদিন পর ৫ জুলাই তার লাশ পার্শ্ববতী পুকুরে পাওয়া যায়। এ ব্যাপারে বদরগঞ্জ থানার অজ্ঞাতনামা আসামীদের বিরুদ্ধে মামলা করেন নিহতের মা মনোয়ারা বেগম।

বদরগঞ্জ থানা পুলিশ মামলাটি তদন্ত শুরু করেন। এর দুমাস পরে মামলাটির তদন্তভার গ্রহণ করে পিবিআই। দীর্ঘ তদন্ত শেষে বুধবার রাতে নিহতের স্ত্রী ও তার প্রেমিককে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয় পিবিআই।

মামলাটির তদন্তকারী কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক মোঃ আবু হাসান কবির জানান, নিহত মনছুর আলী ও হত্যাকারি মোজাম্মেল হক সম্পর্কে মামাতো ফুপাতো ভাই। এই সূত্র ধরে মোজাম্মেল ডালু পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়েন মনছুর আলীর স্ত্রী নাছিমার সাথে।

পরকীয়ার জের ধরে গত বছরের ৩ জুলাই মুনছুর আলীকে বাড়ী থেকে ডেকে নিয়ে গিয়ে ডাল্লুর বাড়ীতে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়। পরে লাশ পাশের পুকুরে ডুবিয়ে রাখা হয়।

জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেপ্তারকৃতরা হত্যাকাণ্ডের দায় স্বীকার করেছে বলে তদন্ত কর্মকর্তা জানান।

পিবিআই অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ শহিদুল্লাহ কাওছার জানান,মামলা রুজু প্রায় ২ মাস পর পিবিআই মামলাটির তদন্তভার গ্রহণ করে ।

তদন্তকালে ঘটনার সাথে জড়িত আসামীদের গ্রেপ্তার করা এবং মামলার রহস্য উদঘাটিত হওয়ায় বাদীর পরিবার এবং স্থানীয় জনগণের মাঝে স্বস্তি ফিরে এসেছে বলে তিনি জানান।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য