আজিজুল ইসলাম বারী,লালমনিরহাট প্রতিনিধি: চিহ্নিত ও পলাতক মাদক ব্যবসায়ী ও চোরাকারবারীর পরিবারের সদস্যদের সাথে মতবিনিময় করেন লালমনিরহাট পুলিশ সুপার এসএম রশিদুল হক।

সোমবার(৪ জুন) বিকেল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত ভারতীয় সীমান্ত ঘেঁষা গ্রামগুলোর বাড়ি বাড়ি গিয়ে গ্রামবাসীকে সচেতন করেন তিনি।

লালমনিরহাটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(এ সার্কেল) সুশান্ত কুমার সরকার জানান, সীমান্তের গ্রামগুলোতে মাদকসহ চোরাকারবারীদের সংখ্যা সব থেকে বেশী। এসব গ্রামের অজ্ঞ ও স্বল্প শিক্ষিত মানুষগুলো সামান্য লোভে পড়ে চোরাকারবারীর সাথে যুক্ত হয়ে আইন বিরোধী কার্যক্রম করে আসছে। বর্তমান সরকারের মাদক বিরোধী অভিযান ও পুলিশের কঠোর অভিযানে মাদক ব্যবসায়ীরা আত্নগোপন করেছেন।

তাই মাদক ও চোরাচালান নির্মুলে সীমান্তবর্তি গ্রামের মানুষদের মাঝে জনসচেতনতা বৃদ্ধি কল্পে সীমান্তবর্তি গ্রামগুলোতে প্রচারাভিযান চালানো হয়। এ প্রচারাভিযানের অংশ হিসেবে পুলিশ সুপার এসএম রশিদুল হকের নেতৃত্বে জেলা পুলিশ প্রতিটি বাড়ি বাড়ি গিয়ে মানুষদের সচেতনের চেষ্টা করছেন। চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ীদের পরিবারের প্রতিটি সদস্যের সাথে কথা বলেন পুলিশ সুপার। যারা মাদকের সাথে জড়িয়ে পড়ে আত্নগোপনে রয়েছেন তাদেরকে আত্নসমাপন করে আলোর পথে ফিরতে আহবান জানানো হয়।

মাদক ব্যবসায়ীর পরিবার, গ্রাম্য মাতব্বর, ইমাম, কাজী, প্রোহীত, শিক্ষকসহ সমাজের মানুষের সাথে কথা বলেন এবং মাদক নির্মুলে তাদের পরামর্শ শুনেন ও দিকনির্দেশনা প্রদান করেন। শুধু মাদক বা চোরাচালান নয়, সামাজিক অপরাধ বন্ধে সীমান্তবাসীকে সচেতন করা হয়। সোমবার(৪ জুন) আদিতমারী উপজেলার ভারতীয় সীমান্ত ঘেঁষা দুর্গাপুর ইউনিয়নের গ্রতিটি গ্রামে চলে এ প্রচারাভিযান। পর্যাক্রমে জেলার প্রতিটি সীমান্তবর্তি গ্রামে চলবে এ কার্যক্রম। এরপর কঠোর আন্দোলনে যাবে জেলা পুলিশ।

লালমনিরহাট পুলিশ সুপার এসএম রশিদুল হক জানান, মাদক নির্মুলের আন্দোলনে সমাজের প্রতিটি মানুষকে সম্পৃক্ত করতে এ প্রচারাভিযান। মাদক ও চোরাচালান বন্ধে সীমান্তবাসীর মানুষদের সাথে মতবিনিময় পুলিশের নিয়মিত কাজ। মাদক ব্যবসায়ীদের আত্নসমাপন করে ভাল পথে ফিরে আসতে তাদের পরিবারের সদস্যদের আহবান জানানো হচ্ছে। এরপর মাদক ও চোরাচালান নির্মুলে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহন করা হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য