দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুর-ফুলবাড়ি-ঢাকা মহাসড়কের আমবাড়ি বাজার নামক স্থানে সড়কে দীর্ঘ ৫ বছর যাবত কোন সংস্কার না হওয়ায় রাস্তার অবস্থা ভয়াবহ রুপ নিয়েছে। সংস্কারের অভাবে এ সড়ক দিয়ে চলাচলকারী যাত্রী সাধারণসহ পণ্য পরিবহনে চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। ওই রাস্তাটির সর্বশেষ সংস্কার করা হয়েছিল ২০১৩ সালের মে মাসের শেষের দিকে।

দীর্ঘদিন সংস্কার না হওয়ায় আমবাড়ি বাজার অংশে মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। ওই রাস্তা ব্যবহার করে দিনাজপুর হতে ঢাকা, বগুড়াসহ অন্যান্য স্থানে দৈনন্দিন কয়েকশত যানবাহন ও লক্ষাধিক লোকজন চলাচল করে থাকে। ওই রাস্তা দিয়ে অসুস্থ ও নারী-পুরুষ এবং শিশুদের, স্কুল-মাদরাসা-কলেজগামী শিক্ষক, শিক্ষার্থী, বাজার করা লোকজনের যাতায়াতে চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে।

রাস্তার মাঝখানে কোথাও কোথাও ১ ফুট হতে দেড় ফুট গর্ত হওয়ায় ও গোটা বাজার জলাবদ্ধতা হওয়ায় এ সড়কে চলতে গিয়ে গর্তে পড়ে ভ্যান, রিক্সা, সাইকেল, হালকা-ভারী গাড়ি উল্টে যাওয়া,গাড়ির যন্ত্রাংশ নষ্ট হওয়া, শিক্ষার্থীসহ লোকজনের কাপড় ভিজে নষ্ট হওয়া নিত্য নৈমিত্তিক ব্যাপার হয়ে দাড়িয়েছে।

স্থানীয় বাজারের হোটেল ব্যবসায়ী আলহাজ্ব আশরাফ আলী শাহ, আমবাড়ি বাজার বণিক সমিতির ও স্থানীয় শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মাওলানা শাহনেওয়াজ আলী শাহ বলেন, দীর্ঘ প্রায় ৫ বছর যাবত রাস্তাটির বাজার অংশে সংস্কার না হওয়ায় ও রাস্তার উপরে বৃষ্টির পানি আটকে জলাবদ্ধতা হওয়ায় যানচলাচলসহ জণগণের প্রচুর ভোগান্তি হচ্ছে।

আমবাড়ি ডিগ্রী কলেজের প্রভাষক আফছার আলী খাঁন বলেন, দিনাজপুর সড়ক ও জনপথ বিভাগের উদাসীনতায় সড়কটির এ বেহাল দশা হয়েছে। জরুরী ভিত্তিতে সংস্কার করা না হলে আগামী ঈদ উল ফিতর উপলক্ষে যান চলাচলে বড় ধরনের ব্যাঘাত ঘটবে ও দূর্ঘটনার আশংকা রয়েছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ গোলাম রব্বানী জানান, সড়ক ও জনপথ বিভাগকে সড়কটি সংস্কারের জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান নুরে এ কামাল জানান, সড়কের আমবাড়ি বাজার অংশের অবস্থা অত্যান্ত ভয়াবহ। উপজেলা প্রশাসনকে সহ সড়ক জনপথ বিভাগকে জানানো হয়েছে।

দিনাজপুর সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ মাছুম সারওয়ার গতকাল সোমবার জানান, আমবাড়ি ব্রীজের ঠিকাদার ওই অংশের কাজ করবেন। ইতিমধ্যে ঠিকাদার কাজ শুরু করেছে। আগামী ২/১ দিনের মধ্যেই ছোট বড় ও দেবে যাওয়া অংশে রাবিশ ফেলানো হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য